বন্দুকধারী এক যুবকের চারপাশ ঘিরে আছে এক দল শিশু। এই দলের একটু দূরে এক কিশোরকে দেখা যায় একে-৪৭ রাইফেল হাতে দাঁড়িয়ে থাকতে। বন্দুকধারী যুবক তাঁর ডান হাতের তর্জনী ডানে-বায়ে নেড়ে মালয় ও আরবি মিশ্রিত ভাষায় কিছু বলছিলেন। ‘জিহাদের পথে আসতে পেরে’ এবং ‘তাওহীদের সৈনিক হতে পেরে’ তিনি মহান আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এরপর নুসানতারা দ্বীপপুঞ্জের কর্তৃপক্ষ বিশেষ করে মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়াকে হুঁশিয়ারি দিলেন বন্দুকধারী যুবক। বললেন, ‘জেনে রাখো...আমরা আর তোমাদের নাগরিক নই। আমরা তোমাদের থেকে মুক্ত হয়েছি। আমরা মহান আল্লাহর অনুমতি ও সহায়তায় সামরিক বাহিনী নিয়ে আসব। তোমরা কোনোভাবেই ঠেকাতে পারবে না।’ আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) প্রকাশিত একটি ভিডিও ফুটেজে এই চিত্র দেখা যায়। ভিডিওচিত্রে ওই বন্দুকধারী হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, যে সরকার ও নেতারা ইসলামি নীতি অনুসরণ করেনি এবং ইসলামের আধিপত্য বিস্তারের জন্য পথ পরিষ্কার করছে না তাঁদের পতন ঘটানো হবে।



বন্দুকধারী এক যুবকের চারপাশ ঘিরে আছে এক দল শিশু। এই দলের একটু দূরে এক কিশোরকে দেখা যায় একে-৪৭ রাইফেল হাতে দাঁড়িয়ে থাকতে। বন্দুকধারী যুবক তাঁর ডান হাতের তর্জনী ডানে-বায়ে নেড়ে মালয় ও আরবি মিশ্রিত ভাষায় কিছু বলছিলেন। ‘জিহাদের পথে আসতে পেরে’ এবং ‘তাওহীদের সৈনিক হতে পেরে’ তিনি মহান আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। 


এরপর নুসানতারা দ্বীপপুঞ্জের কর্তৃপক্ষ বিশেষ করে মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়াকে হুঁশিয়ারি দিলেন বন্দুকধারী যুবক। বললেন, ‘জেনে রাখো...আমরা আর তোমাদের নাগরিক নই। আমরা তোমাদের থেকে মুক্ত হয়েছি। আমরা মহান আল্লাহর অনুমতি ও সহায়তায় সামরিক বাহিনী নিয়ে আসব। তোমরা কোনোভাবেই ঠেকাতে পারবে না।’ 


আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) প্রকাশিত একটি ভিডিও ফুটেজে এই চিত্র দেখা যায়। 


ভিডিওচিত্রে ওই বন্দুকধারী হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, যে সরকার ও নেতারা ইসলামি নীতি অনুসরণ করেনি এবং ইসলামের আধিপত্য বিস্তারের জন্য পথ পরিষ্কার করছে না তাঁদের পতন ঘটানো হবে।


Post A Comment: