ঘন কুয়াশা যখন পাহাড়কে ঢেকে ফেলে, তখন তিনি হেঁটে যান এক ঘর থেকে অন্য ঘরে। যখন গভীর হয় রাত, আঁধারে মুখ ঢাকে চরাচর, শোনা যায় তার পায়ের শব্দ। কখনও বা স্রেফ তার ইচ্ছেতে সশব্দে বন্ধ হয়ে যায় জানলার কপাট। অথবা, হাট করে খুলে যায় ছিটকিনি তোলা দরজা! পরপারের এই রহস্য বুকে নিয়েই জেগে থাকে কালিম্পংয়ের এক অংশ। মর্গ্যান হাউজ ট্যুরিস্ট লজ। যারাই কালিম্পংয়ে গিয়েছেন, জানেন, এই শৈলাবাসের এক অন্যতম বিখ্যাত হোটেল মর্গ্যান হাউজ। ব্রিটিশ আমলের পুরনো এই বাড়ি পাহাড়ের শোভা, শৈত্য আর সবুজের সমারোহে সগর্বে দাঁড়িয়ে থাকে মাথা উঁচু করে। কিন্তু, রীতিমতো সাহসী না হলে মর্গ্যান হাউজে থাকতে পারেন না কেউই! ভয়ে পালিয়ে



ঘন কুয়াশা যখন পাহাড়কে ঢেকে ফেলে, তখন তিনি হেঁটে যান এক ঘর থেকে অন্য ঘরে। যখন গভীর হয় রাত, আঁধারে মুখ ঢাকে চরাচর, শোনা যায় তার পায়ের শব্দ। কখনও বা স্রেফ তার ইচ্ছেতে সশব্দে বন্ধ হয়ে যায় জানলার কপাট। অথবা, হাট করে খুলে যায় ছিটকিনি তোলা দরজা! পরপারের এই রহস্য বুকে নিয়েই জেগে থাকে কালিম্পংয়ের এক অংশ। মর্গ্যান হাউজ ট্যুরিস্ট লজ।


যারাই কালিম্পংয়ে গিয়েছেন, জানেন, এই শৈলাবাসের এক অন্যতম বিখ্যাত হোটেল মর্গ্যান হাউজ। ব্রিটিশ আমলের পুরনো এই বাড়ি পাহাড়ের শোভা, শৈত্য আর সবুজের সমারোহে সগর্বে দাঁড়িয়ে থাকে মাথা উঁচু করে। কিন্তু, রীতিমতো সাহসী না হলে মর্গ্যান হাউজে থাকতে পারেন না কেউই! ভয়ে পালিয়ে


Post A Comment: