শাহরুখ খানের সিনেমা মানে হিট, ব্লকবাস্টার, রেকর্ড— নানা শব্দের ছড়াছড়ি। এ সব মেনে নিয়েও বলতে হয় কিং খানের ফ্লপ সিনেমা কম নয়, কম নয় দর্শকদের কাছে বাজে প্রতিক্রিয়া পাওয়া সিনেমা।

    শাহরুখ খানের সিনেমা মানে হিট, ব্লকবাস্টার, রেকর্ড— নানা শব্দের ছড়াছড়ি। এ সব মেনে নিয়েও বলতে হয় কিং খানের ফ্লপ সিনেমা কম নয়, কম নয় দর্শকদের কাছে বাজে প্রতিক্রিয়া পাওয়া সিনেমা।



ইন্টারনেট মুভি ডেটাবেজে (আইএমডিবি) দর্শকদের রেটিং দেখলে এমন বাতচিতের প্রমাণ পাওয়া যাবে। তবে একই সাইটে শাহরুখের প্রশংসিত সিনেমাও কম নয়। দর্শক পছন্দের শীর্ষে রয়েছে ‘স্বদেশ’, ‘মাই নেম ইজ খান’ বা ‘চাক দে ইন্ডিয়া’র মতো ভিন্ন ধরনের সিনেমা। এর মধ্যে ‘স্বদেশ’ ফ্লপ হলেও প্রশংসিত।

শাহরুখের সর্বশেষ সিনেমাগুলোর মধ্যে হিট হলেও নিন্দা পেয়েছে ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’ ও ‌‘দিলওয়ালে’। আবার ‘ফ্যান’ হিট নয়, কিন্তু শাহরুখের অভিনয় প্রশংসিত।

এবার জেনে নেওয়া যাক আইএমডিবি-তে রেটিং অনুসারে বাজে দশটি সিনেমার নাম। তালিকার দশ নাম্বারে আছে ১৯৯৬ সালে মুক্তি পাওয়া ‘চাহাত’। শাহরুখের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন পূজা ভাট। সিনেমাটির রেটিং ১০ এর মধ্যে ৫.৩। নয় নাম্বারে আছে ‘জামানা দিওয়ানা’। এর আগে আছে দিব্যা ভারতীর সঙ্গে অভিনীত ‘দিল আশনা হ্যায়’। সিনেমাটির পরিচালক অভিনেত্রী হেমা মালিনি।

তালিকার সাত নাম্বারে আছে ‘ত্রিমূর্তি’। ১৯৯৫ সালের সিনেমাটিতে আরো অভিনয় করেছেন অনীল কাপুর ও জ্যাকি শ্রফ। এত তারকার উপস্থিতি সিনেমাটিতে বাড়তি কিছু যোগ করতে পারেনি। এর আগে আছে সোনালী বান্দ্রের বিপরীতে অভিনীত ‘ইংলিশ বাবু দেশি মেম’। পাঁচ নাম্বারে আছে ‘দুশমন দুনিয়া কা’। বোঝা যাচ্ছে সিনেমাটির নাম আপনি শুনেননি, দশে পেয়েছে ৪.৪।

মনীষা কৈরালার বিপরীতে অভিনীত সিনেমা ‘গুড্ডু’ আছে চার নাম্বারে। নেপালি এ সুন্দরীর মুখ দেখেও দর্শকের রহম হয়নি। তিন নাম্বারে আছে ‘দুলহা মিল গ্যায়া’। এ সিনেমায় শাহরুখ মূলত অতিথি চরিত্রে অভিনয় করেছেন। তবে তার পর্দা উপস্থিতিও কম নয়। আরো অভিনয় করেন সুস্মিতা সেন ও ফারদিন খান। সিনেমাটি এত দুর্নাম কুড়িয়েছে যে এরপর ফারদিনকে আর কোনো সিনেমায় দেখা যায়নি।

দুই নাম্বারে আছে ‘ওহ ডার্লিং ইয়ে হ্যায় ইন্ডিয়া’। আর দর্শকের কাছে সবচেয়ে অপছন্দের সিনেমা হল ‘ইয়ে লামহে জুদাই কে’। ২০০৪ সালে সিনেমাটিতে আরো অভিনয় করেন রাভিনা ট্যান্ডন। সিনেমাটিতে চমৎকার কিছু গান ছিল। নানা জটিলতার কারণে নির্মাণ শুরুর ১০ বছর পর সিনেমাটি মুক্তি পায়। মুক্তির সময় যোগ করা হয় বাড়তি কিছু চরিত্র, এমনকি শাহরুখ-রাভিনার ডাবিং করেছেন অন্য কেউ। সিনেমাটির রেটিং ৪.২।

Post A Comment: