কুমিল্লার কলেজছাত্রী সোহাগী জাহান তনুর ডিএনএর পুরো প্রতিবেদন দ্বিতীয় ময়নাতদন্তকারী মেডিকেল বোর্ডকে দিয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।


আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে ওই প্রতিবেদন হস্তান্তর করা হয়।

সূত্র জানায়, সিআইডির কুমিল্লার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মোশারফ হোসেন প্রতিবেদনটি হস্তান্তর করেন। প্রতিবেদন গ্রহণ করেন মেডিকেল বোর্ডের প্রধান ও কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কামদা প্রসাদ সাহা।

এর আগে গত রোববার কুমিল্লার অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম জয়নাব বেগম ডিএনএর পুরো প্রতিবেদন দ্বিতীয় ময়নাতদন্তকারী মেডিকেল বোর্ডকে দেওয়ার জন্য সিআইডিকে আদেশ দেন।

আদালতের ওই আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে আজ সিআইডি ডিএনএর পুরো প্রতিবেদন মেডিকেল বোর্ডকে দিল।

মেডিকেল বোর্ডের প্রধান কামদা প্রসাদ সাহা জানিয়েছিলেন, ডিএনএ প্রতিবেদন পেলে তাঁরা দ্রুত ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন দেবেন।

গত ২০ মার্চ কুমিল্লার কলেজছাত্রী তনু খুন হন। ওই দিনই তাঁর লাশ কুমিল্লার ময়নামতি সেনানিবাসের ভেতরের একটি ঝোপ থেকে উদ্ধার করা হয়।

২১ মার্চ তনুর লাশের প্রথম ময়নাতদন্ত হয়। এতে মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত নয় এবং ধর্ষণের আলামত পাওয়া যায়নি বলে প্রতিবেদন দেওয়া হয়। ওই প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেন তনুর পরিবারের সদস্যরা।

আদালতের নির্দেশে ৩০ মার্চ তনুর লাশ কবর থেকে তুলে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের গঠিত মেডিকেল বোর্ড দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত করে। তবে এখন পর্যন্ত দ্বিতীয় ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়নি।

Post A Comment: