পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম (মিতু) হত্যায় জড়িত সন্দেহে গ্রেপ্তার দুই আসামিকে আদালতে আনা হয়েছে।

আজ রোববার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ওই দুই আসামিকে চট্টগ্রাম আদালত ভবনের দ্বিতীয় তলার একটি কক্ষে এনে রাখা হয়।

জানতে চাইলে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার মো. কামরুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, দুই আসামিকে আদালতে আনা হয়েছে। এর বেশি কিছু বলা যাচ্ছে না।

আদালত প্রাঙ্গণে কামরুজ্জামানকে কাগজপত্র নিয়ে দৌড়াদৌড়ি করতে দেখা গেছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ছাড়াও মহানগর পুলিশের বেশ কয়েকজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে আদালত প্রাঙ্গণে দেখা গেছে।

এদিকে আজ বেলা তিনটায় নগর পুলিশ কমিশনারের সম্মেলনকক্ষে সংবাদ সম্মেলন ডাকা হয়েছে। সেখানে মাহমুদা হত্যা নিয়ে নগর পুলিশ কমিশনার মো. ইকবাল বাহার সাংবাদিকদের ব্রিফ করবেন বলে জানানো হয়েছে।

মাহমুদা হত্যার ঘটনায় ইতিমধ্যে জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হয়েছেন তাঁর স্বামী বাবুল। গত শুক্রবার গভীর রাতে ঢাকার শ্বশুরবাড়ি থেকে তাঁকে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে সাড়ে ১৫ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। গতকাল শনিবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে খিলগাঁওয়ের ভুঁইয়াপাড়ার শ্বশুরবাড়িতে তাঁকে পৌঁছে দেওয়া হয়।

২০ দিন আগে ৫ জুন সকালে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার সময় চট্টগ্রামের জিইসি এলাকায় গুলি ও ছুরিকাঘাতে খুন হন বাবুলের স্ত্রী মাহমুদা। এ মামলায় আটক তিন সন্দেহভাজন ব্যক্তির কাছ থেকে পাওয়া তথ্য যাচাই করতে বাবুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে বলে পুলিশের ভাষ্য।

চট্টগ্রাম পুলিশের একজন কর্মকর্তার ভাষ্য, মাহমুদা খুনের ঘটনায় নয়জনের একটি দল জড়িত বলে তথ্য পেয়েছে পুলিশ। এদের মধ্যে চারজন খুনের সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিল। এই চারজনের মধ্যে মুসা, নবী ও ওয়াসিম নামের তিনজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

Post A Comment: