প্রবাসীদের জন্য বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে হংকং। আজ বুধবার পরামর্শক প্রতিষ্ঠান মার্সার বার্ষিক জরিপে এই তথ্য জানানো হয়।


তিন বছর ধরে অ্যাঙ্গোলার রাজধানী লুয়ান্ডা প্রবাসীদের জন্য সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহরের স্থানটি দখল করে রেখেছিল। কিন্তু এবার সেই স্থান দখল করেছে হংকং।

হংকংয়ের ডলারের শক্তিশালী অবস্থানের কারণে এশিয়ার এই শহরের কাছে লুয়ান্ডাকে শীর্ষ স্থান হারাতে হয়েছে।

তালিকায় এবার দ্বিতীয় স্থানে আছে লুয়ান্ডা। জুরিখ তৃতীয়, সিঙ্গাপুর চতুর্থ, টোকিও পঞ্চম স্থানে আছে।

জরিপে বিশ্বের দুই শর বেশি শহর অন্তর্ভুক্ত করা হয়। জরিপে খাদ্য, বাসস্থান, পরিবহন, বিনোদনসহ দুই শরও বেশি বিষয় পর্যালোচনা করা হয়েছে।
জরিপে নিউইয়র্ক শহরের জীবনমানকে তুলনা ধরা হয়েছে। আর ডলারের বিপরীতে অর্থের ওঠানামাকে ভিত্তি ধরে জরিপটি করা হয়েছে।

জরিপে দেখা গেছে, চীনের দক্ষিণ উপকূলে অবস্থিত স্বায়ত্তশাসিত শহর হংকংয়ের ডলার মার্কিন ডলারের মতো একই গতিতে এগিয়ে চলছে।

জরিপ প্রসঙ্গে মার্সার ভাষ্য, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অর্থনৈতিক অস্থিরতা ও চমকপ্রদ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এই তালিকাকে প্রভাবিত করেছে। অস্বাভাবিক পরিস্থিতি ছাড়া বেশির ভাগ সময় সারা বিশ্বে জিনিসপত্রের দাম মোটামুটিভাবে স্থিতিশীল থাকে।

এর আগে মার্কিন ডলারের শক্তিশালী অবস্থানের কারণে ব্যয়বহুল শহরের তালিকার ওপরের দিকে যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি শহর স্থান করে নিয়েছিল।

অন্যদিকে, মুদ্রার মান পড়ে গেছে—এমন দেশের শহরের ব্যয় অনেকখানি কমে গেছে। মস্কো তেমনই এক শহর। ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় ১৭ থেকে নেমে এখন ৬৭ নম্বরে এসে দাঁড়িয়েছে মস্কো।

তালিকায় সবচেয়ে কম খরচের শহরের স্থানে রয়েছে নামিবিয়ার রাজধানী উইন্ডহোয়েক। শহরটির অবস্থান ২০৯তম।

Post A Comment: