রিয়ালের চেয়ে মাত্র এক পয়েন্ট এগিয়ে বার্সা, একেই বলে দুঃসময়! চলতি মৌসুমের শুরু থেকেই অপ্রতিরোধ্য গতিতে ছুটছিল যেই দল তারাই এখন পরাজয়ের বৃত্তে বন্দী! অবিশ্বাস্য মনে হলেও কঠিন এই বাস্তবতার সামনে এখন স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনা। রোববার নিজেদের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে ভ্যালেন্সিয়ার কাছে ২-১ গোলে হার মানে লুইস এনরিকের দল। এর ফলে দীর্ঘ ১৩ বছর পর এবারই প্রথম স্প্যানিশ লা লিগায় টানা তিন ম্যাচে জয়বঞ্চিত বার্সেলোনা। এর আগে ২০০৩ সালে লা লিগায় এমন দুঃসময়ের মুখোমুখি হয়েছিল স্পেনের এই জায়ান্ট ক্লাবটি। তবে এদিন বার্সাকে দুঃখের সাগরে ভাসানোর জন্য খল-নায়কের ভূমিকা পালন করেন ইভান রাকিটিচ। ম্যাচ শুরুর ২৬ মিনিটে তার করা আত্নঘাতী গোলেই যে পিছিয়ে পড়ে বার্সেলোনা। আর প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ের ৪৫+১ মিনিটে ভ্যালেন্সিয়ার ব্যবধান দ্বিগুন করেন মিনা লোরেঞ্জো। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই ম্যাচে ফেরার জন্য মরিয়া হয়ে উঠে স্বাগতিকরা। আর ৬৩ মিনিটে গোল করে বার্সেলোনার ব্যবধান কমান দলের সেরা তারকা লিওনেল মেসি। বার্সেলোনার জার্সিতে এটা তার ৪৫০তম গোল। আর ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে মোট ৫০০তম গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন এলএম টেন। এই গোলে স্বস্তিও ফিরে কাতালান শিবিরে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর ব্যবধান কমেনি। এর ফলে হারের লজ্জা নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় মেসি-নেইমারদের। এর আগে এল ক্লাসিকোতে রিয়াল মাদ্রিদের কাছে ২-১ গোলে হারে লুইস এনরিকের দল। এরপর রিয়াল সোসিয়েদাদের মাঠ থেকেও ১-০ গোলের পরাজয় নিয়ে ফিরে মেসি-ইনিয়েস্তারা। এবার নিজেদের মাঠেও হারের চিত্রনাট্য। সেইসঙ্গে টানা তিন ম্যাচে ৯ পয়েন্ট হাতছাড়া। আসলে এই দলটিই কী মৌসুমের শুরু থেকেই দুর্দান্ত পারফর্ম করা বার্সা? বার্সা ভক্তরাই যেন বিশ্বাস করতে পারছেন না। লা লিগায় আরও একটি পরাজয়ের পর পয়েন্ট টেবিলে থমকে আছে বার্সেলোনা। দুই সপ্তাহ আগেও প্রতিপক্ষের সঙ্গে তাদের পয়েন্ট ব্যবধান ছিল ১০। বর্তমানে তিন নাম্বারে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের চেয়ে বার্সার পয়েন্ট ব্যবধান মাত্র ১। আর সমান সংখ্যক ম্যাচে সমান ৭৬ পয়েন্ট নিয়ে গোলব্যবধানে পেছনে থাকার কারণে লিগ টেবিলের দুইয়ে আছে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ।

 

   চলতি মৌসুমের শুরু থেকেই অপ্রতিরোধ্য গতিতে ছুটছিল যেই দল তারাই এখন পরাজয়ের বৃত্তে বন্দী! অবিশ্বাস্য মনে হলেও কঠিন এই বাস্তবতার সামনে এখন স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনা।

রোববার নিজেদের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে ভ্যালেন্সিয়ার কাছে ২-১ গোলে হার মানে লুইস এনরিকের দল। এর ফলে দীর্ঘ ১৩ বছর পর এবারই প্রথম স্প্যানিশ লা লিগায় টানা তিন ম্যাচে জয়বঞ্চিত বার্সেলোনা। এর আগে ২০০৩ সালে লা লিগায় এমন দুঃসময়ের মুখোমুখি হয়েছিল স্পেনের এই জায়ান্ট ক্লাবটি।

তবে এদিন বার্সাকে দুঃখের সাগরে ভাসানোর জন্য খল-নায়কের ভূমিকা পালন করেন ইভান রাকিটিচ। ম্যাচ শুরুর ২৬ মিনিটে তার করা আত্নঘাতী গোলেই যে পিছিয়ে পড়ে বার্সেলোনা। আর প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ের ৪৫+১ মিনিটে ভ্যালেন্সিয়ার ব্যবধান দ্বিগুন করেন মিনা লোরেঞ্জো।

কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই ম্যাচে ফেরার জন্য মরিয়া হয়ে উঠে স্বাগতিকরা। আর ৬৩ মিনিটে গোল করে বার্সেলোনার ব্যবধান কমান দলের সেরা তারকা লিওনেল মেসি। বার্সেলোনার জার্সিতে এটা তার ৪৫০তম গোল। আর ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে মোট ৫০০তম গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন এলএম টেন। এই গোলে স্বস্তিও ফিরে কাতালান শিবিরে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর ব্যবধান কমেনি। এর ফলে হারের লজ্জা নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় মেসি-নেইমারদের।

এর আগে এল ক্লাসিকোতে রিয়াল মাদ্রিদের কাছে ২-১ গোলে হারে লুইস এনরিকের দল। এরপর রিয়াল সোসিয়েদাদের মাঠ থেকেও ১-০ গোলের পরাজয় নিয়ে ফিরে মেসি-ইনিয়েস্তারা। এবার নিজেদের মাঠেও হারের চিত্রনাট্য। সেইসঙ্গে টানা তিন ম্যাচে ৯ পয়েন্ট হাতছাড়া। আসলে এই দলটিই কী মৌসুমের শুরু থেকেই দুর্দান্ত পারফর্ম করা বার্সা? বার্সা ভক্তরাই যেন বিশ্বাস করতে পারছেন না।

লা লিগায় আরও একটি পরাজয়ের পর পয়েন্ট টেবিলে থমকে আছে বার্সেলোনা। দুই সপ্তাহ আগেও প্রতিপক্ষের সঙ্গে তাদের পয়েন্ট ব্যবধান ছিল ১০। বর্তমানে তিন নাম্বারে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের চেয়ে বার্সার পয়েন্ট ব্যবধান মাত্র ১। আর সমান সংখ্যক ম্যাচে সমান ৭৬ পয়েন্ট নিয়ে গোলব্যবধানে পেছনে থাকার কারণে লিগ টেবিলের দুইয়ে আছে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ।

Post A Comment: