গেল শুক্রবার দেশজুড়ে মুক্তি পেয়েছে ওয়াজেদ আলী সুমন পরিচালিত ‘সুইটহার্ট’ ছবিটি। মুক্তির আগে ও পরে ছবিটি নিয়ে তেমন কোনো প্রচার না থাকলেও মুক্তির প্রথম দিন থেকেই আলোচনায় এসেছে ছবিটি। ছবির নায়িকা হিসেবে বিদ্যা সিনহা মিমের অভিনয়ও প্রশংসা পেয়েছে। এসব বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন মিম।

 

ছবিটি থেকে সাড়া পাচ্ছেন কেমন?

খুব ভালো। রাজশাহী, চট্টগ্রাম, সিলেটসহ দেশের নানা প্রান্ত থেকে পরিচিত-অপরিচিত অনেকেই ফোনে ছবি নিয়ে প্রশংসার কথা শোনাচ্ছেন আমাকে। গল্পের পাশাপাশি আলাদাভাবে আমার অভিনয়েরও প্রশংসা করছেন। এর মধ্যেই কাকরাইলপাড়ায় যাঁরা ছবিটি ডিস্ট্রিবিউশনের দায়িত্বে আছেন, তাঁরা আমাকে শুভকামনা জানিয়েছেন।

বিষয়টি কীভাবে উপভোগ করছেন?

ছবিটি প্রথম দিন থেকেই ভালো যাচ্ছে—এ কথা বিভিন্নজনের কাছ থেকে শোনার পর আমারও ভালো লাগছে। একসঙ্গে আমার আর বাপ্পীর প্রথম কাজ এটি। ছবির গল্প মৌলিক এবং পুরোটাই প্রেমের। এটি দর্শকেরা যে ভালোভাবে নিয়েছেন, এতে করে আরও রোমান্টিক প্রেমের গল্পে কাজের আগ্রহ বাড়ছে।

আপনি বলছিলেন, অনেকেই আলাদাভাবে আপনার অভিনয়ের প্রশংসা করছেন...

হ্যাঁ। অনেকেই ছবিটি দেখার পর আমাকে ফোনে জানিয়েছেন যে ‘পদ্ম পাতার জল’ ছবির চাইতেও নাকি এ ছবিতে আমার অভিনয় ভালো হয়েছে। ছবির গল্প যেমন ভালো, গানও ভালো। পরিবার-পরিজন নিয়ে দেখার মতো একটি ছবি হয়েছে এটি।


মাত্র কিছুদিন আগে আপনার অভিনীত ছবি ‘ব্ল্যাক’ মুক্তি পেয়েছে। ‘সুইটহার্ট’ কি ‘ব্ল্যাক’কে ছাড়িয়ে যাবে?

‘ব্ল্যাক’ ছবির বিষয়টি ছিল ভিন্ন। ছবি মুক্তির পরপরই পাইরেসি হয়ে যায়। ফলে প্রথম সপ্তাহের পর ছবিটি দেখতে দর্শকেরা আর প্রেক্ষাগৃহমুখী হননি। এতে করে ছবিটি মার খেয়েছে। সেদিক থেকে ‘সুইটহার্ট’ এগিয়ে আছে। পাইরেসি যদি না হয়, তাহলে ‘সুইটহার্ট’ ‘ব্ল্যাক’কে ছাড়িয়ে যাবে বলেই আমার বিশ্বাস।

আপনি কি নিজে ছবিটি দেখতে প্রেক্ষাগৃহে গিয়েছেন?

না, এখনো যাইনি। তবে আজ পরিবারের সবাই মিলে বসুন্ধরা সিনেপ্লেক্সে ছবিটি দেখতে যাব।

মুক্তির আগে-পরে ছবিটি নিয়ে তেমন কোনো প্রচারের উদ্যোগ ছিল না কেন?

ছবি মুক্তির আগে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে ছবির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাই প্রচারের কথা বলেছেন। কিন্তু শেষ মুহূর্তে গিয়ে আমি কাউকেই পাইনি। বাপ্পী তাঁর অন্য ছবির শুটিং নিয়ে ব্যস্ত। শেষ মুহূর্তে অন্যরাও প্রচারের বিষয়টি নিয়ে তেমন আগ্রহ দেখাননি। আমি তো আর একা একা প্রেক্ষাগৃহে ঘুরতে পারি না। আমার নিরাপত্তারও তো একটা ব্যাপার আছে। এ ব্যাপারে আমাকে দায়ী করা যাবে না। তবে যেকোনো ছবিকেই আলোচনায় আনতে প্রচার-প্রচারণাও জরুরি।

সোহমের সঙ্গে আপনার দ্বিতীয় ছবির কাজ নাকি পিছিয়ে যাচ্ছে?

আমিও তো তাই-ই শুনছি। ছবিটির শুটিং শুরুর কথা ছিল মার্চ থেকে। ওই সময় কলকাতায় কিসের যেন নির্বাচনের ব্যাপার আছে। বিষয়টি আমি সঠিক জানি না। ওই নির্বাচনে সোহম অংশ নিচ্ছেন। ফলে মার্চ মাসে ছবির শুটিংয়ে অংশ নিতে পারছেন না সোহম। এ কারণে শুটিং পিছিয়ে জুন মাসে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে।

 

 

 

 ভালোবাসা দিবসে বাগদান সেরে ফেললেন পরীমনি

 পাকিস্তানের বংশভূত এবং অ্যামেরিকান পর্ণ তারকা তাহমিনা বলিউডে পা রাখতে যাচ্ছেন

Post A Comment: