যুব বিশ্বকাপের সেমিতে বাংলাদেশ পেল ওয়েস্ট ইন্ডিজকে।

যুব বিশ্বকাপের সেমিতে বাংলাদেশ পেল ওয়েস্ট ইন্ডিজকে।
যুব বিশ্বকাপের সেমিতে বাংলাদেশ পেল ওয়েস্ট ইন্ডিজকে।

শেষ পর্যন্ত ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের যুবাদের পেয়েছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দল। সোমবার শেষ আটের লড়াইয়ে পাকিস্তানকে পাঁচ উইকেটে হারিয়ে সেমিফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করে ক্যারিবিয়ান যুবারা। গ্রুপ পর্বে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বিতর্কিত জয়ের পরই পাকিস্তানের বিপক্ষে দারুণ এক জয় তুলে সকল সমালোচনার জবাব দিল তারা। 

আগামী বৃহস্পতিবার মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। 

পাকিস্তানের দেয়া ২২৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দারুণ সূচনা পায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ যুবারা। গিড্রন পোপকে সঙ্গে নিয়ে উদ্বোধনী জুটিতে ৪৫ রান সংগ্রহ করেন টেভিন ইলমাচ। তবে ব্যক্তিগত ২৫ রানে পোপের বিদায়ের পর শিমরন হেতমায়েরকে ৭৭ রানের আরো একটি দারুণ জুটি গড়েন ইলমাচ। 

এরপর আর ২৫ রানে তিন উইকেট তুলে নিয়ে দারুণভাবে খেলায় ফিরে আসে পাকিস্তান। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে শামার স্পিংগারের সঙ্গে ৪৩ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখান জায়েদ গুলি। এরপর কেমু পলকে নিয়ে ৩৯ রানের জুটি গড়ে ৬০ বল বাকি থাকতে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন গুলি।  

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৪ রান করে ইলমাচ। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫২ রান করেন হেতমায়ের। এছাড়া স্পিংগার ৩৭ ও গুলি ২৬ রান করেন। পাকিস্তানের পক্ষে সামিন গুল, আহমেদ শাফাক ও শাদাব খান ১টি করে উইকেট পান। 

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ২১ রানে তিন উইকেট হারিয়ে চাপে পরে পাকিস্তানের যুবারা। এরপর আর ৩৬ রান যোগ করতেই আরো দুই উইকেট হারালে ১০০ রানের আগেই গুটিয়ে যাবার শঙ্কায় পরে পাকিস্তান শিবির।  

এরপরের পুরো অধ্যায়টি প্রতিরোধের গল্প। সালমান ফায়াজকে নিয়ে ১৬৪ রানের জুটি গড়েন উমার মাসুদ। ২৮.১ ওভার স্থায়ী জুটিটি ভাঙে সেঞ্চুরিয়ান মাসুদের বিদায়েই। ১৫ চার ও ২ ছয়ে ১১৪ বলে ইনিংসটি সাজিয়ে যখন তিনি সাজঘরে ফেরেন তখন নামের পাশে ১১৩ রানের ঝলমলে একটি ইনিংস।

অন্যদিকে মাসুদের জুটি সঙ্গী ফায়াজ শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থেকেই মাঠ ছাড়েন। ৩ চার ও ১ ছয়ে ৭৯ বলে ৫৮ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। ক্যারিবীয় যুবাদের হয়ে চিমার হোল্ডার নেন ২টি উইকেট। একটি করে উইকেট গেছে জোসেপ, স্প্রিঙ্গার, জন ও পলের দখলে।

Post A Comment: