এক নজরে দেখে নিন, চলতি বছরে স্মার্টফোনে যোগ হতে যাওয়া ৯টি নতুন ফিচার!

এক নজরে দেখে নিন, চলতি বছরে স্মার্টফোনে যোগ হতে যাওয়া ৯টি নতুন ফিচার!
প্রযুক্তি ডেস্ক, সময়ের কণ্ঠস্বর – স্মার্টফোন দ্রুতই উন্নত থেকে উন্নততর হচ্ছে নয়া প্রযুক্তি স্মার্টফোনকে আরও আধুনিক ও ইউজার-ফ্রেন্ডলি করে তুলছে৷ এক নজরে দেখে নেয়া যাক চলতি বছর স্মার্টফোনে কোন ৯টি নতুন ফিচার যোগ হতে চলেছে-
১.কনট্যাক্টলেস চার্জিং: চার্জার গুঁজে ফোনে চার্জ দেয়ার দিন ফুরিয়েছে৷ ‘ওয়্যারলেস’ চার্জারের কনসেপ্ট এসে গিয়েছে, কিন্তু এখনও সেভাবে নজর কাড়েনি৷ এবছর ‘কনট্যাক্টলেস চার্জিং’ আরও সহজলভ্য হতে চলেছে৷ এখন সাধারণত উইন্ডোজ ফোন ও স্যামসংয়ের দামি মডেলগুলিতে তার ছাড়াই চার্জ দেয়ার সুবিধা রয়েছে, কিন্তু চলতি বছর সেই সুবিধা কম দামি ফোনেও মিলবে৷
২. গায়েব হবে হেডফোন জ্যাক: আইফোন পথ দেখাচ্ছে, তবে এ বছর আরও কয়েকটি নামজাদা স্মার্টফোন প্রস্তুতকারক সংস্থা এই পথে হাঁটবে৷ এবছরের কয়েকটি ফোনে হেডফোনে জ্যাক থাকবে না! ভাবছেন, ৩.৫ এমএম জ্যাক না থাকলে গান-রেডিও শুনবেন কিভাবে? কেন, ব্লুটুথ রয়েছে তো! শোনা যাচ্ছে, আসন্ন আইফোনেই নাকি হেডফোনের জ্যাক থাকছে না৷ তবে এবছর কিন্তু আরও কয়েকটি ফোন বাধ্যতামূলক ব্লুটুথ হেডফোনের ফিচারস নিয়ে আসছে৷
৩. ডুয়েল ডিসপ্লে: ইয়োটাফোন ইতিমধ্যেই বাজারে এনেছে দুই স্ক্রিনের মোবাইল৷ তারপর এলজি এনেছে তাদের ভি ১০ মডেল, যেখানে একটি বড় ডিসপ্লে ও আরেকটি ছোট ডিসপ্লে একসঙ্গে ব্যবহার করতে পারেন ইউজাররা৷ এবছর সেই প্রবণতা আরও বাড়বে৷ এখন একটা প্রশ্ন রয়েই যাচ্ছে, একই ফোনে দু’টি স্ক্রিন কি সবসময় কাজে লাগবে? সে প্রশ্নের উত্তর মিলবে এবছরই৷
৪. অন্তত ৩২ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ: এখন মোটামুটি দামি স্মার্টফোনে ১৬ জিবি পর্যন্ত ইন্টারনাল স্টোরেজ মেলে, কিন্তু এবছর ‘হেভি ইউজার’-দের কথা মাথায় রেখে যে সমস্ত স্মার্টফোন বাজারে আসবে তাদের ন্যূনতম স্টোরেজ ক্যাপাসিটি হবে ৩২ জিবি৷ আসলে ক্যামেরার গুণগত মান যত উন্নত হচ্ছে, ছবির সাইজও বাড়ছে৷ সেই সব ছবি, প্রচুর অ্যাপস, গেমস ফোনে লোড রাখতে হলে ৩২ জিবি মেমোরি থাকতেই হবে৷
৫. 4K ভিডিও: এখনকার বাজারচলতি স্মার্টফোনে বেশিরভাগই টু-কে স্ক্রিন ব্যবহৃত হয়| সোনি-র জেড ৫ মডেলে এখন ফোর-কে ভিডিও দেখার সুযোগ মিললেও ডিসপ্লে সবসময় ফোর-কে রেজোলিউশন দেখায় না৷ আবার এটাও ঠিক, ভারতীয় ইউজাররা এইচডি ও ফোর-কে ভিডিও-র পার্থক্যও সবসময় বোঝেন না৷ ‘ভার্চুয়াল রিয়ালিটি’-র কনসেপ্ট যত জনপ্রিয় হবে, ততই এ দেশের স্মার্টফোন বাজারে ফোর-কে রেজোলিউশন সমৃদ্ধ ফোন আসবে৷
৬. প্রেসার সেনসিটিভ ডিসপ্লে: ২০১৫ সালে অ্যাপেল তাদের সিক্স এস মডেলে থ্রিডি টাচ-এর কনসেপ্ট নিয়ে এসেছে৷ বিষয়টা কী? ধরুন ফোনের কোনও কি-প্যাড আপনার একবার টেপার দরকার, তখন আপনি টাচ স্ক্রিনে একবার আলতো করে চাপ দিলেন৷ আবার কখনও দুই বা ততোধিক বার চাপ দেওয়ার দরকার পড়লে স্ক্রিনটি আরেকটু বেশি সময় ধরে চেপে রাখলেই আপনার কার্যসিদ্ধি হবে৷ একেই বলে ‘প্রেসার সেনসিটিভ ডিসপ্লে’৷ অ্যাপেল ছাড়াও এবছর আরও কয়েকটি সংস্থা এই প্রযুক্তির ওপর গুরুত্ব দেবে৷
৭. স্পষ্ট কথা: ভয়েস ওভার এল টি ই, সংক্ষেপে ‘ভোল্ট’ এবছর জনপ্রিয় হবে৷ তার মানে মোবাইল ফোনে আপনার বলা কথা অপরপ্রান্তে থাকা মানুষটি আরও স্পষ্ট ও পরিষ্কার শুনতে পাবেন৷ কমবে কল ড্রপ৷ এখনও বেশ কয়েকটি মডেলে এই ফিচার মেলে, কিন্তু ভারতে ভোল্ট-এর পরিষেবা এখনও চালু হয়নি৷ তবে রিলায়েন্স জিও আসার পরে চিত্রটা পাল্টাবে বলে মনে হয়৷
৮. আই-স্ক্যানার: হালে বাজারে জনপ্রিয় হয়েছে ফিঙ্গার-প্রিন্ট স্ক্যানার, বা আঙুলের ছাপে ফোন ‘আন-লক’ করার পদ্ধতি৷ কিন্তু এবছর জনপ্রিয় হবে চোখের সাহায্যে ফোন অন-লক করার পদ্ধতি যার পোশাকি নাম আই-স্ক্যান৷ মাইক্রোসফট লুমিয়া ৯৫০ ও ৯৫০ এক্স এল মডেলে এই সুবিধা মেলে৷ এলজি ও স্যামসংও এখন আই-স্ক্যানার সুবিধাযুক্ত ফোন বাজারে আনার চেষ্টা চালাচ্ছে৷
৯. শক্তিশালী ডুয়েল ক্যামেরা: সস্তার ফোনে এখন ডুয়েল ক্যামেরা মিললেও সামনের ক্যামেরার রেজোলিউশন অধিকাংশ সময়ই কম হয়৷ অনেকসময় ভিজিএ ক্যামেরাতেই ‘সেলফি’ তুলতে বাধ্য হন ইউজাররা৷ কিন্তু এবছর এমন সব ফোন বাজারে আসবে, যার সামনেও ৮-১৬ এমপি ক্যামেরা থাকবে৷ যুগের চাহিদার সঙ্গে তাল মেলাতে চিনা-কোরিয়া তো বটেই, ভারতীয় স্মার্টফোনেও ফ্রন্ট ক্যামেরাকে শক্তিশালী করা হচ্ছে৷ সেলফি তলার হিড়িকে গা ভাসতে আর দ্বিধা করবেন না৷

Post A Comment: