লক্ষ্য মানুষ বেকার হয়ে যেতে পারে প্রযুক্তির উৎকর্ষতায়!!!



লক্ষ্য মানুষ বেকার হয়ে যেতে পারে প্রযুক্তির উৎকর্ষতায়!!!
লক্ষ্য মানুষ বেকার হয়ে যেতে পারে প্রযুক্তির উৎকর্ষতায়!!!


আগামী ৩০ বছরের মধ্যেই বুদ্ধিমান যন্ত্রের উন্নতির ফলে বিশ্বের অর্ধেক মানুষ বেকার হবে এমনটাই আশংকা করছেন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজের রাইস ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক মোশে ভার্ডি। 
স্বয়ংক্রিয় যন্ত্র বা রোবটের ব্যবহারে শিল্পক্ষেত্রে গত ৪০ বছরে বৈপ্লবিক পরিবর্তন ঘটেছে। এতে উৎপাদনশীলতা বাড়লেও কমেছে মানুষের কর্মসংস্থান। যুক্তরাষ্ট্রে বিভিন্ন পণ্য উৎপাদন খাতে কর্মসংস্থান ১৯৮০ এর দশকের পর থেকে কমতে শুরু করে। এতে মধ্যবিত্ত শ্রেণির উপার্জন কমে আসে। এখন দেশটিতে দুই লাখের বেশি রোবট শিল্পকারখানায় কাজ করছে। আর এ রকম ‘যন্ত্রশ্রমিকের’ সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে।
আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন ফর দ্য অ্যাডভান্সমেন্ট অব সায়েন্সের বার্ষিক সভায় মোশে ভার্ডি বলেন, মানুষের প্রায় সব ধরনের কাজ করে ফেলার সামর্থ্য অর্জন করছে রোবট যা লাখ লাখ মানুষের কর্মসংস্থানের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। 
যন্ত্র যদি মানুষের সব কাজ করে ফেলতে পারে, তাহলে মানুষ কী করবে? তিনি আরও বলেন,  কিছু কাজের জন্য মানুষের প্রয়োজন সব সময়ই থাকবে। তবে বিকল্প হিসেবে রোবটের ব্যবহার অনেককিছুই বদলে দিতে পারে। এতে কোনো পেশাতেই আর মানুষের একচ্ছত্র আধিপত্য থাকবে না, সমান প্রভাব পড়বে নারী-পুরুষের ওপর। এখন প্রশ্ন হলো, বিশ্ব অর্থনীতি কি ৫০ শতাংশের বেশি বেকারত্ব সামাল দিতে পারবে?

Post A Comment: