মাত্র একটি পরাজয়ে আফগানিস্তান উঠে যেতে পারে এশিয়া কাপের চূড়ান্ত পর্বে!!!


মাত্র একটি পরাজয়ে আফগানিস্তান উঠে যেতে পারে এশিয়া কাপের চূড়ান্ত পর্বে!!!
মাত্র একটি পরাজয়ে আফগানিস্তান উঠে যেতে পারে এশিয়া কাপের চূড়ান্ত পর্বে!!!
সমীকরণটা সহজ নয় তাঁদের জন্য। এশিয়া কাপের চূড়ান্ত পর্বে খেলতে হলে নিজেদের ম্যাচে আফগানিস্তানকে তো জিততে হতোই, আজ দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে ওমানের কাছে হারতে হবে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে। পরের ম্যাচে কী হবে সেটি নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়, তবে নিজেদের কাজটা ঠিকই গুছিয়ে রাখল আফগানরা। দিনের প্রথম ম্যাচে হংকংকে ৬৬ রানে হারিয়েছে আসগর স্টানিকজাইয়ের দল।

ব্যাটিংই আফগানিস্তানকে এগিয়ে দিয়েছিল অনেকটা। ১৭৮ বেশ স্বস্তিদায়ক একটা স্কোর। টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে ভালোই শুরু এনে দিয়েছিলেন মোহাম্মদ শাহজাদ। তাঁর ১৪ বলে ২৪ রানে ভর করেই পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে ৪৮ রান করে আফগানিস্তান। এরপরের গল্পটা অধিনায়ক স্টানিকজাই ও পাঁচে নামা নজিবুল্লাহ জাদরানের। স্টানিকজাইয়ের অবশ্য একটু আক্ষেপ থাকতে পারে। এক রানের জন্য যে ব্যক্তিগত ফিফটিটা পেলেন না, ৩৫ বলে করেছেন ৪৯ রান। 

তবে এঁরা পার্শ্বনায়ক, আজ ব্যাটিংয়ে আফগানিস্তানের মূল নায়ক নজিবুল্লাহই। বাছাইপর্বের আগের দুটি ম্যাচেই মধ্য বিশের ঘরে আউট হয়ে গেছেন। আজ বাঁচা-মরার লড়াইয়ে জ্বলে উঠলেন ছয়দিন পর ২৩ বছরে পা দিতে যাওয়া এই আফগান ব্যাটসম্যান। ৩৫ বলে খেলেছেন ৬০ রানের দারুণ এক ইনিংস, যাতে চার ৩টি, ছক্কা ৪টি। 

লক্ষ্য ১৭৯ দেখেই সম্ভবত বাছাইপর্বে একটিও ম্যাচ না জেতা হংকংয়ের মনোবল নড়ে গিয়েছিল। না হলে দারুণ শুরু করেও ওভাবে চাপে ভেঙে পড়বে কেন তারা? ৬.২ ওভারেই ৫৬ রান তুলে ফেলা হংকং পরের ৫৬ রান করতেই হারিয়ে ফেলে সবকটি উইকেট! দলের ৩ থেকে ১০—কোনো ব্যাটসম্যানই দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি। বিফলে গেছে দুই ওপেনার অংশুমান রাথ ও কিঞ্চিৎ​ শাহের ‘কিঞ্চিৎ​’ চেষ্টা। রাথ করেছেন ৪১ রান, শাহ ২৯। 

দল টুর্নামেন্টের মূল পর্বে উঠতে পারবে কি না সেটি এখনো ভাগ্যের ওপর নির্ভর করছে। তবে আফগান কোচ ইনজামাম-উল-হক দলের জয়ের পাশাপাশি খুশি হবেন আরেকটি ব্যাপারেও— দলের সবচেয়ে বড় তারকা মোহাম্মদ নবীর বোলিং। আগের দুই ম্যাচে ব্যাটিং-বোলিং কোনোটিতেই খুব বেশি অবদান রাখতে না পারা নবীই ধসিয়ে দিয়েছেন হংকংকে। ১৭ রানে নিয়েছেন ৪ উইকেট! 

Post A Comment: