ক্যারিবীয় প্রিমিয়ার লিগেও (সিপিএল) দল আছে শাহরুখ খানের। ত্রিনিদাদ ও টোবাগো দলটির মালিক তিনি। কলকাতা নাইট রাইডার্সের সঙ্গে মিলিয়ে নাম রাখা হয়েছে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স। সিপিএলের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন দলটির হয়ে খেলার সম্ভাবনা ছিল সাকিব আল হাসানের। তবে কলকাতার নাইট সাকিব ত্রিনবাগোর নাইট হলেন না। তাঁকে কিনে নিয়েছে অন্য দল।

 

গতকাল সিপিএলের খেলোয়াড় ড্রাফটে ১ লাখ ১০ হাজার ডলারে দলে টেনেছে জ্যামাইকা তালাওয়াস। সিপিএলের এবারের আসরে খেলে বাংলাদেশি মুদ্রায় সাকিব পাবেন প্রায় ৮৭ লাখ টাকা। গতকালকের ড্রাফটে সাকিবসহ সাতজন বাংলাদেশি ছিলেন। তবে সাকিবকেই কেবল দলে নিয়েছে কেউ। ডাকা হয়নি মাহমুদউল্লাহ, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার ও মুস্তাফিজকে।

বিপিএলের পর পিএসএলেও দুর্দান্ত খেলছেন তামিম। তাঁকে ​তবুও কেউ ডাকেনি। কদিন আগে আইপিএলের নিলামে মুস্তাফিজকে ১ কোটি ৪০ লাখ রুপিতে কিনেছে হায়দরবাদ সানরাইজার্স। গত বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বিস্ময়কর আবির্ভাবের পরও মুস্তাফিজকেও ​নিল না সিপিএলের ছয় দলের কেউ। শুধু টাকার জন্য নয়, ক্রিকেটের অন্যতম তীর্থভূমি ওয়েস্ট ইন্ডিজে গিয়ে খেললে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের অভিজ্ঞতা বাড়ত।

সাকিবের দল জ্যামাইকা এবার বেশ ভালো স্কোয়াড গড়েছে। ক্রিস গেইল, কুমার সাঙ্গাকারা আছেন। আছেন আন্দ্রে রাসেল, লাসিথ মালিঙ্গাও। বিপিএল কিংবা পাকিস্তান সুপার লিগে অনেক বড় তারকা না গেলেও এখানে এবি ডি ভিলিয়ার্স, ব্রেন্ডন ম্যাককালাম, ডেভিড মিলাররা আছেন।

খেলোয়াড়দের ড্রাফটে সাকিবকে কেনা হয়েছে তৃতীয় সর্বোচ্চ দাম দিয়ে। প্রথম ধাপের খেলোয়াড়রা পেয়েছেন ১ লাখ ৬০, দ্বিতীয় ধাপে ১ লাখ ৩০ হাজার ডলারে।


দেখে নিন এবারের খেলোয়াড় ড্রাফটে কাকে কত টাকায় কেনা হয়েছে:

Post A Comment: