১০০০-গোলের কোটায় মেসি ও রোনালদো।

১০০০-গোলের কোটায় মেসি ও রোনালদো

গত শনিবার লিগে মালাগার বিপক্ষে লিওনেল মেসি এক গোল করে রেকর্ডটাকে ৯৯৯-তে এনে রেখেছিলেন। অপেক্ষা ছিল আর একটা গোলের। এক গোল হলেই মেসি-রোনালদোর মিলিত গোলের সংখ্যা হাজারের ঘরে চলে যায়।

নাম দুটি যখন মেসি-রোনালদো, একটা গোল তো বাঁ হাতের খেল। দুজন মিলে গোল করা কাজটাকে এত সহজ বানিয়ে ফেলেছিলেন যে, হাজারতম গোলের অপেক্ষাটা ‘কখন ফুরোবে’—ছাড়িয়ে ‘কে ফুরাবেন’ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। কিন্তু এই সহজতম কাজটাই গড়াল এক সপ্তাহের ‘দীর্ঘ’ অপেক্ষাতে। ক্রিকেটে যেমন নার্ভাস নাইন্টিজ থাকে, যে সময়টাতে সেঞ্চুরির অপেক্ষায় থাকা ব্যাটসম্যান একটু বেশিই ধীরে খেলেন। অনেকটা তেমন করেই যেন স্নায়ুচাপে ঘিরে ধরেছিল বার্সা ও রিয়াল মাদ্রিদ ফরোয়ার্ডকে।

মাঝে দুজন মিলে দুটি ম্যাচ খেলেছেন—গত রোববার ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো লিগে খেলেছিলেন রিয়াল বেটিসের বিপক্ষে, আর বুধবার মেসি খেলেছেন অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে কাপে। অথচ ১৮০ মিনিটেও কেউ অপেক্ষার অবসান করতে পারলেন না। একটা মাত্র গোলের জন্য এত কিছু!

শেষ পর্যন্ত হলো কাল। ন্যু ক্যাম্পে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে ম্যাচে মেসির গোলটি ম্যাচের শুরুতেই পিছিয়ে পড়া বার্সেলোনাকে শুধু জয়ের পথেই এনে দেয়নি, বিশ্ব ফুটবলের সবচেয়ে বড় দুই তারকার বিজ্ঞাপনও হয়ে রইল।


এই মৌসুমেই ক্যারিয়ারে ৫০০তম গোল করা রোনালদোর ক্লাব ও দেশ মিলিয়ে ক্যারিয়ারে গোলের সংখ্যা এখন ৫১৮টি। আগামী মাসেই ৩১-এ পা দিতে যাওয়া এই রিয়াল ফরোয়ার্ড ক্যারিয়ারে মোট ৭৭৩ ম্যাচ খেলেছেন। আর ২৮ বছর বয়সী মেসির ক্যারিয়ার গোল ৪৮২টি। বার্সা ও আর্জেন্টিনার হয়ে তিনি ম্যাচ খেলেছেন ৬১৩টি। সব মিলিয়ে ১৩৮৬ ম্যাচে ১০০০ গোল! অবিশ্বাস্য!

তাঁদের মধ্যে সম্পর্কটা এখন যেকোনো সময়ের চেয়ে ভালো, অনেক বেশি বন্ধুত্বপূর্ণ—মেসি-রোনালদো দুজনেরই এমন দাবি। কাল গোল করে বন্ধুত্বটাকে রেকর্ড বইয়ের পাতায় নিয়ে গেলেন মেসি। তবে বন্ধু বলুন আর শত্রু, এমন অতিমানবীয় মানের দুজন খেলোয়াড় একই সময়ে খেলতে দেখা সৌভাগ্যের ব্যাপার। তাই যত দিন তাঁরা খেলছেন, তত দিন শুধু আরাম করে বসে মেসি-রোনালদোর কীর্তি উপভোগ করুন। 

Post A Comment: