ডিজিটাল সেন্টারের ১০ হাজার উদ্যোক্তাকে প্রশিক্ষণ দেবে সরকার

ডিজিটাল সেন্টারের ১০ হাজার উদ্যোক্তাকে প্রশিক্ষণ দেবে সরকার
ডিজিটাল সেন্টারের ১০ হাজার উদ্যোক্তাকে প্রশিক্ষণ দেবে সরকার
তৃণমূলের উন্নয়ন সংবাদ ও জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ইউনিয়ন পরিষদের ওয়েবসাইট ও বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে নিয়মিত তথ্য প্রকাশের জন্য ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের (ইউডিসি) ১০ হাজার উদ্যোক্তাকে নাগরিক সাংবাদিকতার প্রশিক্ষণ দেবে  সরকার। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ‘তৃণমূলের জন্য তথ্যজানালা’ শীর্ষক কর্মসূচির আওতায় এ প্রশিক্ষণ দেয়া হবে।

আগামী তিন বছরে ১০ হাজার ইউডিসি উদ্যোক্তার প্রশিক্ষণের লক্ষ্যে মঙ্গলবার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সম্মেলন কক্ষে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ ও তথ্যসেবা বার্তা সংস্থার (টিএসবি) মধ্যে এক সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। 

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ডেপুটি সেক্রেটারি ও তৃণমূলের তথ্যজানালা কর্মসূচির পরিচালক সৈয়দ মুজিবুল হক ও তথ্যসেবা বার্তা সংস্থার সহকারী সম্পাদক মো. নুরুল ইসলাম স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন।

এ সময় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টেলিভিশন অ্যান্ড ফিল্ম স্টাডিস বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. শফিউল আলম ভূঁইয়া, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব হারুনুর রশীদ ও সুশান্ত কুমার সাহা, লিভারেজিং আইসিটি ফর গ্রোথ, এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড গভর্নেন্স (এলআইসিটি) প্রল্পের কমিউনিকেশন স্পেশালিস্ট অজিত কুমার সরকার, ইউএনবি’র চিফ নিউজ এডিটর মাহফুজুর রহমান, গণযোগাযোগ বিশেষজ্ঞ মু. রহমত আলী, ডেইলি স্টারের মেট্রো ডেক্সের ডেপুটি এডিটর মাহমুদুল হক উপস্থিত ছিলেন।

শ্যাম সুন্দর সিকদার বলেন, অবাধ তথ্যপ্রবাহ জনগণের ক্ষমতায়নের অন্যতম পূর্বশর্ত। তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার করে অবাধ তথ্য প্রবাহের মাধ্যমে জনগণকে ক্ষমতায়িত করার জন্য তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ তৃণমূলের জন্য তথ্যজানালা কর্মসূচি চালু করতে যাচ্ছে। এ কর্মসূচির আওতায় প্রায় ১০ হাজার ইউডিসি উদ্যোক্তাকে নাগরিক সাংবাদিকতার প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। ইউডিসি উদ্যোক্তাদের প্রশিক্ষণ দেয়া হলে তারা ৪ হাজার ৫৪৭টি ইউডিসি ওয়েবসাইটে স্থানীয় উন্নয়ন কর্মকাণ্ডসহ আবহমান বাংলার সংস্কৃতি, ঐতিহ্য, কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক উন্নয়ন, মানুষের সাফল্য গাঁথা কাহিনী, অকৃষি উদ্যোগ, পরিবেশ দুর্যোগ ব্যবস্থাপনাসহ মানুষের জীবন ও জীবিকার নানা বিষয়ে সংবাদ তৈরি করে নিয়মিত ওয়েবসাইটসহ বিভিন্ন সামজিক ও গণমাধ্যমে প্রকাশ করবে।  

সুশান্ত কুমার সাহা বলেন, সরকারের অধিকাংশ উন্নয়ন কর্মকাণ্ড মাঠ পর্যায়ে বিস্তৃত। ইউডিসি প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে সমাজ ও রাষ্ট্র ব্যবস্থার প্রতিটি ক্ষেত্রে তৃণমূলের অবাধ তথ্যপ্রবাহ নিশ্চিত করার সুবর্ণ সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে। ইউডিসি উদ্যোক্তাদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে এ প্রবাহ নিশ্চিত করা সম্ভব হবে।

আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে ইউডিসি উদ্যোক্তাদের প্রশিক্ষণ প্রদানের আহ্বান জানিয়ে হারুনুর রশীদ বলেন, তৃণমূলের উন্নয়নসংবাদসহ জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো সংবাদ আকারে তৈরি করে ওয়েবসাইট ও সোস্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করা হলে তাতে মানুষ উপকৃত হবে। 

Post A Comment: