ঢাকা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, চিকিৎসা শিক্ষায় ভর্তি হতে আসা শিক্ষার্থীদেরকে অধূমপায়ীর প্রত্যয়নপত্র দাখিল করতে হবে। চিকিৎসক হতে চাইবেন, এমন কেউ ধূমপান করেন, এটা কখনোই ভাবা যায় না। 

২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষ থেকেই এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করার উদ্যোগ নেওয়া হবে বলেও জানান মোহাম্মদ নাসিম।

আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে এমবিবিএস ও বিডিএস ভর্তির ক্ষেত্রে ধূমপায়ীদেরকে অযোগ্য ঘোষণা করায় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকে অভিনন্দন জানিয়েছে ধূমপানবিরোধী আন্দোলনকারী কয়েকটি সংগঠন।

রোববার (০৩ জানুয়ারি) জাতীয় যক্ষা নিরোধ সমিতির (নাটাব) সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মোজাফফর হোসেন পল্টুর নেতৃত্বে কয়েকটি ধূমপানবিরোধী আন্দোলনকারী সংগঠনের নেতারা সচিবালয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তারা এ ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়ে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে জনসচেতনতা কার্যক্রম গ্রহণ করে সব ধরনের সহায়তা প্রদানের আশ্বাস প্রদান করেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, সমাজ থেকে ধূমপান প্রবণতা দূর করতে হলে শিক্ষিত ও সচেতন জনগোষ্ঠীর মধ্য থেকেই এ অভ্যাস দূর করার আন্দোলন শুরু করতে হবে। তারই অংশ হিসাবে চিকিৎসা শিক্ষায় ভর্তি হতে আসা শিক্ষার্থীদেরকে অধূমপায়ীর প্রত্যয়নপত্র দাখিল করতে হবে। চিকিৎসক হতে চাইবেন, এমন কেউ ধূমপান করেন- এটা কখনোই ভাবা যায় না। 

২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষ থেকেই এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করার উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে জানান মোহাম্মদ নাসিম। 

শুধু সিগারেট নয়, গুল, জর্দা, সাদাপাতাসহ যেকোনো তামাক সেবন থেকে মানুষকে বিরত রাখতে জনসচেতনতা কার্যক্রম জোরদার করার জন্য তামাকবিরোধী সংগঠনগুলোর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

এ সময় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্য সচিব সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডাঃ দীন মোঃ নুরুল হক, বিএমএ’র মহাসচিব অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সলান, নাটাবের সাধারণ সম্পাদক খায়ের উদ্দিন আহম্মেদসহ বাংলাদেশ তামাকবিরোধী জোট, অ্যাকশন এইড ইন ডেভেলপমেন্ট, ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনাকালে মন্ত্রী সিগারেটের মোড়কের সচিত্রকরণের ক্ষেত্রে বিদ্যমান আইন মেনে চলতে সরকার মনিটরিং করবে বলেও সকলকে আশস্ত করেন।

Post A Comment: