Decrease font Enlarge font
বিদায় নিলো ২০১৫ সাল। সারা বছরের হিসাব-নিকাশও গেছে চুকে। প্রতিবারের মতো এ বছরও তোমাদের জন্য তৈরি হয়েছে অনেকগুলো চমৎকার চলচ্চিত্র। বছর শেষে এই চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে শ্রেষ্ঠত্বের দৌড়ে এগিয়ে আছে কোন চলচ্চিত্রগুলো? চলো জেনে নিই গত বছরের সেরা পাঁচ শিশুতোষ চলচ্চিত্রের কথা।   


ইনসাইড আউট
ডিজনি পিক্সার অ্যানিমেশনের অ্যানিমেটেড চলচ্চিত্র ‘ইনসাইড আউট।’ চলচ্চিত্রের কাহিনীটা একদম অন্যরকম। একটা মেয়ের মনস্তত্ত্ব নিয়ে গড়ে উঠেছে গল্পটি। মেয়েটির মনকে নিয়ন্ত্রণ করে পাঁচটি সত্ত্বা। তার পাঁচ ধরনের আবেগ- আনন্দ, দুঃখ, ভয়, রাগ, বিরক্তি। এই আবেগের সত্ত্বাগুলোই মেয়েটির জীবনকে প্রভাবিত করে তাকে নানা ধরনের অনুভূতির মাধ্যমে জীবনের পথে এগিয়ে নিয়ে যায়। এমন একটা গল্প নিয়েই তৈরি হয়েছে ‘ইনসাইড আউট’ নামের চমৎকার চলচ্চিত্রটি। বিশ্বজুড়ে ব্যাপক সারা ফেলেছে এই ছবি।


শাউন দ্যা শিপ মুভি
আর্ডমান ফিল্মসের অ্যানিমেটেড চলচ্চিত্র ‘শাউন দ্যা শিপ মুভি’। মার্ক বার্টনের লেখা ও রিচার্ড স্টারজাক পরিচালিত ছবিটি যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তি পায় ২০১৫ সালের ৫ আগস্ট। ব্রিটিশ টিভি সিরিজ ‘শাউন দ্যা শিপ’-এর চলচ্চিত্র রূপ মুভিটি। বিশ্বব্যাপী শিশুদের মাঝে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে এ চলচ্চিত্র।


দ্যা পিনাটস মুভি
টুয়েন্টিয়েথ সেঞ্চুরি ফক্স/ব্লু স্কাই স্টুডিওস-এর ছবি ‘দ্যা পিনাটস মুভি’। অ্যানিমেটেড মুভিটির শুরু থেকে শেষ এক মুহূর্তের জন্য চোখ সরাতে পারবে না। পুরো সময়টাই মুভিটা দর্শককে মোহাচ্ছন্ন করে রাখবে।


সিন্ড্রেলা
খুব ছোট থেকে শুনে আসা সিন্ড্রেলার গল্পটার অ্যানিমেটেড মুভির রূপটা প্রায় সবারই দেখা। তবে ২০১৫ সালে মুক্তি পাওয়া ডিজনির ‘সিন্ড্রেলা’ মুভি যুগ যুগ ধরে শুনে আসা সিন্ড্রেলার রূপকথাকে নতুনভাবে উপস্থাপন করেছে দর্শকের সামনে। আর এই মুভি আরো একবার প্রমাণ করেছে, এত বছর পরেও বিশ্ববাসীর কাছে সিন্ড্রেলার গল্পের আবেদন কিন্তু একটুও কমে নি।


হোম
ড্রিমওয়ার্ক অ্যানিমেশনের সায়েন্স ফিকশন বাডি কমেডি মুভি ‘হোম’। অ্যাডাম রেক্সের লেখা শিশুতোষ বই ‘দ্যা ট্রু মিনিং অফ স্মেকডে’-এর উপর নির্ভর করে তৈরি করা হয়েছে এ মুভিটি। ২০১৫ সালের ২৭ মার্চ ছবিটি মুক্তি পায়। বিশ্বব্যাপী ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছে ছবিটি।
এই চলচ্চিত্রগুলো ছাড়াও আরও বেশ কিছু চলচ্চিত্র আলোচনায় ছিল মুক্তি পাওয়ার পর থেকেই। সেসব আলোচিত চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে ‘মিনিয়নস’, ‘হোটেল ট্রানসিলভানিয়া টু’, ‘দ্যা লিটল প্রিন্স’, ‘অ্যাল্ভিন অ্যান্ড দ্যা চিপমাঙ্কস: দ্যা রোড চিপ’।

Post A Comment: