Decrease font Enlarge font
এগিয়ে চলেছে সময়, এগিয়ে চলেছে প্রযুক্তি। সময় এবং প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে চলছে মনুষ্য-সভ্যতাও। ঝাপসা হয়ে আসছে ২০১৫ সালের ক্যালেন্ডার। এবার ঝাপসা হতে থাকা ক্যালেন্ডারটি থেকে প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির হিসাব মেলানোয় ব্যস্ত সময়, প্রযুক্তি এবং মনুষ্যসভ্যতা।

হিসাবের খাতা বলছে, বরাবরের মতো এবারও ‘কল্যাণকর’ কিছু রেখে যাচ্ছে সময়ের স্রোতে হারিয়ে যেতে থাকা বছরটি। আশীর্বাদ হিসেবে দিয়ে যাচ্ছে ‘ময়লা থেকে সুপেয় পানি তৈরির যন্ত্র’, ‘গৃহহীন তরুণদের এইচআইভি প্রতিরোধে এলগরিদম’, ‘ডিজঅ্যাবল ব্যক্তিদের জন্য ‘স্নিকার’ টেকনোলজি’, ‘সংক্রামক রোগ নির্ণয়ে বিশেষ স্ট্রিপ’, ‘পরিবেশবান্ধব ইট’, ‘শিশুদের শ্বাস-প্রশ্বাসে সাহায্যকারী যন্ত্র’, ‘শরণার্থীদের জন্য ‘টেকসই’ বাড়ি’, ‘তেল শোষণকারী ‘ন্যানোশিট’, ‘আয়োডিনের যোগানদাতা টিপ’, ‘ব্লাড সুগার পরীক্ষার ট্যাটু’, ‘অন্ধদের ‘দেখাতে’ সাহায্য করার অ্যাপ’, ‘ময়লা পানি ফের ব্যবহার উপযোগী করার ফিল্টার’ ইত্যাদি।

বছর শেষের হিসাব মিলিয়ে বাংলানিউজও পাঠকদের স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে মানবকল্যাণকর ১৫টি যুগান্তকারী ‘আশীর্বাদের’ কথা। এ ‘আশীর্বাদ’ নিয়ে তিন পর্বের প্রতিবেদনের দ্বিতীয় পর্ব পড়ুন আজ।


তেল শোষণকারী ‘ন্যানোশিট’
এ বছর অস্ট্রেলিয়ার দাইকিন ইউনির্ভাসিটির একদল গবেষকের সঙ্গে একত্র হয়ে ফিলাডেলফিয়ার ড্রিক্সেল ইউনির্ভাসিটি ও মিসৌরি ইউনির্ভাসিটির গবেষকরা এক ধরনের ‘ন্যানোশিট’ তৈরি করেছেন যা স্পঞ্জের মতো কাজ করবে।

ক্ষুদ্রাকৃতির এ ‘ন্যানোশিট’ তৈরি করা হয়েছে ফাইবারের মাধ্যমে। এ বিষয়ে এক গবেষক বলেন, ক্ষুদ্রাকৃতির হালকা এ ‘ন্যানোশিট’ নিজের ওজনের সাড়ে পাঁচ গুণ তেল শোষণে সক্ষম।

২০১৩ সালে থেকেই গবেষকরা এর কাজ শুরু করেন, সে সময় এটি ছিল পাউডার মাত্র।


শরণার্থীদের জন্য ‘টেকসই’ বাড়ি
শরণার্থীদের বিষয় মাথায় রেখে এ বছর ‘বেটার শেল্টার’ নামে টেকসই বাড়ির পরিকল্পনা করে ইউএনএইচসিআর। এ ধরনের বাড়ির আয়ুষ্কাল ধরা হয়েছে তিন বছর। দাতা সংস্থাগুলো এ ধরনের বাড়ি সহজে এক স্থান থেকে অন্যস্থানে বহন করতে পারবে। এটি স্থাপনে লাগবে না কোনো যন্ত্রপাতিও।

শরণার্থীদের পুনর্বাসনে যেখানে প্রয়োজনে হচ্ছে সেখানে এ ধরনের বাড়ি ব্যবহার করা হচ্ছে, যেমন গ্রিস। ইউএনএইচসিআর’র বেটার শেল্টার টিমের সঙ্গে আইকেইএ ফাউন্ডেশন এ কাজে সহযোগিতা করছে।


শিশুদের শ্বাস-প্রশ্বাসে সাহায্যকারী যন্ত্র
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (হু) মতে, বিশ্বব্যাপী পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের মৃত্যুর অন্যতম কারণ শ্বাস-প্রশ্বাসের জটিলতা।

যে শিশুরা স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে পারে না, তাদের জন্য প্রয়োজন ‘কন্টিনিউয়াস পজেটিভ এয়ারওয়ে প্রেসার’ (সিপিএপি)। এ প্রক্রিয়ায় উন্নয়নশীল দেশের শিশুদের স্বল্প খরচে স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাস দেওয়া সম্ভব। ওয়েস্টার্ন মিশিগান ইউনির্ভাসিটির একদল আন্ডার গ্রাজুয়েট শিক্ষার্থীর আবিষ্কার এ প্রক্রিয়ায় প্রয়োজন ইনভার্টার ও পানি। এ প্রক্রিয়ায় পাত্রে রাখা পানি ইনভার্টারের মাধ্যমে দ্বিগুণ প্রেসার তৈরি করে অক্সিজেন সরবরাহ করবে। যা শিশুর স্বাভাবিক শ্বাস নিতে সাহায্য করবে।


পরিবেশবান্ধব ইট
এক পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ভারতে প্রতিবছর অন্তত দুইশ’ বিলিয়ন (বিশ হাজার কোটি) ইট তৈরি হয়। আর যে প্রক্রিয়ায় ইট তৈরি করা হয় তা বায়ু দূষণের পাশাপাশি গ্রিন হাউস গ্যাস নির্গমন বাড়ায়। আর পেপার মিলের ফেলা আবর্জনা, যার কোনো ব্যবহার নেই, তা মানুষের স্বাস্থ্য ও পরিবেশ উভয়েরই ক্ষতি করছে।

বিষয় দু’টি মাথায় রেখে ভারতের এমআইটি’র শিক্ষার্থীরা ‘ইকো ব্ল্যাক ব্রিক’ নামে পরিবেশবান্ধব এক ধরনের ইট তৈরি করেছে। এ ইট তৈরিতে ব্যবহার করা হয়েছে ব্রয়লার অ্যাশ, যা চুল্লিতে পোড়ানোর পরিবর্তে ‘অ্যালকালি অ্যাক্টিভেশন টেকনোলজি’র মাধ্যমে প্রস্তুত করা হয়েছে।

বর্তমানে শিক্ষার্থীরা উত্তর প্রদেশের মুজাফ্ফারনগরে একটি প্রজেক্টে এ প্ল্যান্টের বিষয়ে কাজ করছেন। স্থানীয় একটি পেপার মিল তাদের এ প্রক্রিয়া বাস্তবায়নে সাহায্য করছে।


সংক্রামক রোগ নির্ণয়ে বিশেষ স্ট্রিপ
এইচআইভি, ই.কোলি ও অন্যান্য ব্যাকটেরিয়া শরীরে রয়েছে কি-না তা ঘরেই পরীক্ষা করতে পারবেন ‘পেপার অ্যান্ড প্লাস্টিক স্ট্রিপ’র মাধ্যমে।

ফ্লোরিডা আটলান্টিক ইউনির্ভাসিটির গবেষকদের তৈরি বিশেষ এ স্ট্রিপে অ্যান্টিবডি ও গোল্ড ন্যানোপার্টিকেল ব্যবহার করা হয়েছে। শরীরে যদি ই.কোলি ব্যাকটেরিয়ার উপস্থিতি পাওয়া যায়, তবে কাগজের স্ট্রিপের রঙ পরিবর্তন হয়ে যাবে।

এইচআইভি’র উপস্থিতি শনাক্তে শিগগিরই বোস্টনের বার্মিংহাম অ্যান্ড উইমেন্স হসপিটালে বিশেষ এ প্লাস্টিক স্ট্রিপের ব্যবহার শুরু হবে। আগামী বছরের মাঝামাঝিতে এর বাণিজ্যিক ব্যবহারের আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন গবেষকরা।

Post A Comment: