Decrease font Enlarge font
ঢাকা: যে কোনো মোবাইল ফোন থেকে ১৬২৬৩ নম্বরে কল দিলেই ঘরের সামনে বা কাঙ্ক্ষিত জায়গায় পৌঁছে যাবে অ্যাম্বুলেন্স। সারাদেশের সরকারি ও বেসরকারি অ্যাম্বুলেন্স সুবিধার জন্য মোবাইল ফোনে এ সেবা দিতে উদ্যোগী হয়েছে সরকার।

মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে জনগণের জন্য স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে নীতিগত সিদ্ধান্ত গ্রহণ সংক্রান্ত এক সভায় এমন সিদ্ধান্ত এসেছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এতে সভাপতিত্ব করেন।

দেশের সব সরকারি ও বেসরকারি অ্যাম্বুলেন্স সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের তালিকা তৈরি করে দ্রুত উদ্যোগ নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন তিনি। এক্ষেত্রে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে স্বেচ্ছায় এ সেবায় অংশ নিতে আহ্বান জানানোর সিদ্ধান্তও হয়। বর্তমানে ১৬২৬৩ নম্বরে ফোন করে দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে স্বাস্থ্য সেবা পাওয়া যাচ্ছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে আগামী ১৭ মার্চ থেকে প্রতি বছর সপ্তাহটি সারাদেশে ‘স্বাস্থ্য সেবা সপ্তাহ’ হিসেবে পালিত হবে। সব সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে স্বাস্থ্য সেবা দেওয়ার সিদ্ধান্তও এসেছে একই সভায়।

এছাড়া দেশের ৩১টি সরকারি মেডিকেল কলেজে বিশেষজ্ঞ শিক্ষকের সংকট দূর করার উদ্যোগও নেওয়া হচ্ছে। অবসরে থাকা অভিজ্ঞ শিক্ষকদের চুক্তিভিত্তিক বা সম্মানির ভিত্তিতে ঢাকার বাইরে বিভিন্ন কলেজে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার উদ্যোগ বিষয়ে সভায় আলোচনা হয়।

সভায় ইন্টার্ন চিকিৎসকদের প্রশিক্ষণকাল দুই বছর নির্ধারণ করা, কমিউনিটি ক্লিনিক বা উপজেলা থেকে বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ার জন্য রেফার পদ্ধতির প্রবর্তন, অ্যানেস্থেশিস্ট সংকট দূর করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার ব্যাপারে আলোচনা হয়।

এতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্য সচিব সৈয়দ মন্জুরুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মো. নুরুল হক, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল আহসান খান, বিএমএ’র সভাপতি অধ্যাপক ডা. মাহমুদ হাসান, মহাসচিব অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সলান, বিএমডিসির চেয়ারম্যান, বিভিন্ন সরকারি মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষসহ মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

এর আগে, মন্ত্রী মানসিক স্বাস্থ্য আইন প্রণয়ন বিষয়ে একটি বৈঠকে সভাপতিত্বে দ্রুত আইনের খসড়া প্রণয়ন করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন। পাশাপাশি তিনি মানসিক রোগীদের যথাযথভাবে চিহ্নিতকরণ, চিকিৎসা ও পুনর্বাসন প্রক্রিয়া নিশ্চিত করতে গুরুত্ব দিয়ে আইনের খসড়া প্রস্তুত করতে কমিটিকে নির্দেশ দিয়েছেন।

এছাড়াও মোহাম্মদ নাসিম এদিন সচিবালয়ে ‘বাংলাদেশ কান্ট্রি কো-অর্ডিনেশন মেকানিজম’র সভায় সভাপতিত্ব করেন।

Post A Comment: