Decrease font Enlarge font
জাতীয় সংসদ ভবন থেকে: বাবা-মাকে হত্যার দায়ে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ঐশীর ঘটনা সংসদে তুলে ধরলেন বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ।

বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) রাতে জাতীয় সংসদে অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে বিরোধীদলীয় নেতা ঘটনার বর্ণানা করে মাদকের ছোবল থেকে দেশের যুব ও তরুণ সমাজকে বাঁচাতে উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠনের দাবি করেন।

বিরোধীদলীয় নেতা বলেন, ঐশীর মতো ১৮/১৯ বছরের একটি মেয়ে তার বাবা-মাকে হত্যার জন্য ফাঁসি হলো। এটির মধ্য থেকে বোঝা যায় মাদক কত ভয়ানক, ভয়াবহ। সেই মেয়ে মাদকে আসক্ত ছিল বলেই বাবা-মাকে মারতে দ্বিধা করেনি।

কোনো সন্তান বাবা-মাকে মারতে পারে না এমন মন্তব্য করে রওশন এরশাদ বলেন, কারণটি হলো মাদকে আসক্ত হলে মানুষের কোনো জ্ঞান থাকে না। এ সময় সে যেকোনো কাজ করতে পারে।

দেশে এখন সর্বস্তরে মাদকের বিস্তার মন্তব্য করে তিনি বলেন, এখন অনেক রেস্টুরেন্টে, ছোট ছোট চায়ের দোকানে, প্রত্যেকটি বস্তির অলিতে-গলিতে মাদকের বিস্তার ঘটেছে। এটি শুধু রাজধানী ঢাকাতেই নয়, সারা বাংলাদেশেই। এখন মাদকের বিস্তার ঘটেছে অসম্ভবভাবে। এ থেকে আমাদের দেশকে বাঁচাতে হবে। সম্মিলিত প্রচেষ্টায় পরিত্রাণের পথ খুঁজে বের করতে হবে।

বিরোধীদলীয় নেতা একটি পরিসংখ্যান তুলে ধরে বলেন, পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে- বাংলাদেশে এখন প্রায় ৬৬ লাখ মাদকে আসক্ত ছেলে-মেয়ে রয়েছে। কিন্তু আমার মনে হয় এর সংখ্যা আরও বেশি হবে।

স্পিকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি বলেন, এই বিপথ থেকে উত্তরণের জন্য উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠন করতে হবে। কমিটিতে আলোচনা করে কিভাবে মাদক বাংলাদেশে বন্ধ করা যায় এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এক্ষেত্রে সর্বস্তরের জনগণকে কিভাবে সম্পৃক্ত করা যায় সেটি নিয়েও ভাবতে হবে আমাদের।

Post A Comment: