Decrease fontEnlarge font
মাগুর মাছ তো মুঠোতেই পোরা যায়। কিন্তু সে তো দেশি মাগুর! মাগুর কিন্তু অনেক বড়ও হয়। কিন্তু কতো বড়ো? যদি বলি মানুষের চেয়ে বড়ো, বিশ্বাস হবে তাহলে? অবিশ্বাস্য মনে হলেও সত্য। কম্বোডিয়ার মেকং নদীতে জেলেদের জালে ধরা পড়েছে এক দৈত্যাকার মাগুর, যা প্রায় ৭ফুট লম্বা।জায়ান্ট মেকং ক্যাটফিশ নামে পরিচিত এ মাগুর বিশাল আকৃতির জন্য খ্যাত হলেও এটির মতো এতো বড় মাগুর এর আগে কখনও দেখা যায়নি। 

বিশাল আকৃতির জন্য একে ‘রাজকীয় মাছ’ বা ‘রয়্যাল ফিশ’ নামেও ডাকা হয়ে থাকে। মিঠা পানির এতো বড় মাগুর জেলেরা তো বটেই এমনকি প্রাণিবিজ্ঞানীরাও অবাকই হয়েছেন।    

মেকং নদীর এই অতিকায় প্রজাতির মাগুর নিয়ে গত ২০ বছর ধরে গবেষণা করে আসছেন যুক্তরাষ্ট্রের নেভাদা বিশ্ববিদ্যালয়ের জীববিজ্ঞানী অধ্যাপক জেব হোগান। ‘এটা আসলেই অসাধারণ’-বলে তিনি নিজেও বিস্ময় প্রকাশ করতে ভোলেননি। এই দৈত্যাকার মাগুরটি যখন জেলেদের জালে ধরা পড়ে তখন তিনি নিজে সেখানে উপস্থিত হয়েছিলেন। তার ভাষায়, ‘যুক্তরাষ্ট্রে গত ১০০ বছরেও এতো বিশাল আকারের মাগুর ধরা পড়েনি। এমনটা কোটিতে একটা ঘটে।’ 

মাগুরটি বাজারে বিক্রি করতে না দিয়ে তারা এটির গায়ে ট্যাগ লাগিয়ে একে আবার ছেড়ে দিয়েছেন মাঝ নদীতে। উদ্দেশ্য মাগুরটার গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করা। হোগান নিজেও কিছুক্ষণ অতিকায় মাগুরটার সঙ্গে সাঁতার কেটেছেন। আর সে অনুভূতিকে তিনি বর্ণনা করেছেন ‘অবিশ্বাস্য’ বলে। 

খারাপ খবর হচ্ছে, মেকং ক্যাট ফিশ বিলুপ্তির কিনারে এসে দাঁড়িয়েছে। কমতে কমতে এই মাগুর এখন শতকরা মাত্র দশভাগ টিকে আছে।

Post A Comment: