দাঁতে ব্যথায় ঘরোয়া সমাধান আপনার আশেপাশেই আছে। শুধু মাত্র তা বুঝে শুনে কাজে লাগাতে হবে। তেমন কিছু সমাধান হলো—

লবণ পানি: এক গ্লাস গরম পানিতে বেশি করে লবণ গুলে কুলকুচি করুন যতক্ষণ সম্ভব। জীবাণুর কারণে দাঁতের ব্যথা হলে তা দূর হবে। মাড়িতে রক্ত চলাচল বাড়ার কারণে সাময়িকভাবে ব্যাথা কমে আসে।
দারুচিনি: এটি ব্যাকটোরিয়া প্রতিরোধী উপাদান হিসেবে বেশ পরিচিত। আরও আছে ব্যথা কমানোর গুণ। এটি দাঁতের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। দাঁত ব্যথা করলে দারুচিনির ছোট একটি টুকরো হালকা চিবিয়ে ব্যথা করা অংশের উপর রাখুন| দারুচিনি থেকে বেরুনো রস কিছুক্ষণ রেখে গিলে ফেলুন।

আদা: যে দাঁতে ব্যথা করছে সে দাঁত দিয়ে ছোট এক টুকরো আদা চিবাতে থাকুন। যদি বেশি ব্যথা লাগে তাহলে অন্য পাশের দাঁত দিয়ে চিবিয়ে ওই আক্রান্ত দাঁতের উপর জিহ্বা দিয়ে চেপে রাখুন।

রসুন: রসুনে প্রচুর পরিমাণে সালফার আছে। যা ব্যাকটোরিয়া প্রতিরোধী এবং দাঁতের ব্যথা কমায়। রসুন অল্প একটু থেতলিয়ে ব্যথার স্থানে রাখুন।

লবঙ্গ: এটি দাঁতের ইনফেকশন ও ব্যথা কমে যায়| ব্যথার স্থানে একটা লবঙ্গ রাখুন| ব্যথা না কমা পর্যন্ত রাখুন| দুই-এক ফোঁটা লবঙ্গের তেল ব্যবহার করতে পারেন। এ ছাড়া লবঙ্গ চূর্ণের সঙ্গে পানি বা অলিভ অয়েল মিশিয়ে পেস্ট বানিয়েও লাগাতে পারেন।

শসা: এতে আছে ভিটামিন বি-৬, পটাসিয়াম, থাইমাইনসহ অনেক পুষ্টি উপাদান। শসা একটি টুকরো দিয়ে পেস্ট বানিয়ে ব্যথার স্থানে রাখুন। ভাল সমাধান মিলবে।

পেঁয়াজ: টাটকা ও রসালো এক টুকরো পেঁয়াজ আক্রান্ত দাঁতের উপর চেপে রাখুন।

মরিচ: শুকনো মরিচ গুঁড়ার পেস্ট তৈরি করে আক্রান্ত স্থানে লাগান। মরিচ দাঁতের ব্যথাকে অবশ করে দেবে। গোলমরিচের গুঁড়োও ব্যবহার করতে পারেন। এ ছাড়া মরিচের সঙ্গে লবণের ব্যবহার করা যেতে পারে।

পেয়ারা পাতা: কয়েকটি পেয়ারা পাতা নিন। তারপর এক গ্লাস পানিতে সিদ্ধ করুন। এবার ওই পানি দিয়ে কুলকুচি করুন।

পুদিনা চা: এক চামচ পুদিনা চা নিন। এক কাপ গরম পানিতে মিশিয়ে ২০ মিনিট রাখুন। ঠাণ্ডা হয়ে গেলে এ পানি নিয়ে কুলকুচি করুন।

Post A Comment: