নাটোরের জেলা প্রশাসক মশিউর রহমান বলেছেন, মৎস্য ভান্ডার খ্যাত চলনবিলে সুঁতিজাল একটি সামাজিক সমস্যা। সুঁতি দেয়াকে কেন্দ্র করে আইন শৃংখলার অবনতিসহ হত্যার মত জঘন্যতম ঘটনা ঘটে। আর বৃহৎ এই চলনবিলাঞ্চলে প্রশাসন, রাজনৈতিক ব্যক্তিসহ সকলের সদ্বেচ্ছা থাকলে সুঁতিজাল বন্ধ করা সম্ভব। তবে মাথায় হাত বুলিয়ে, শালা বলে প্রয়োজনে গুলি করে হলেও চলনবিলে সুঁতি ও বাদাই জাল বন্ধ করতে হবে। মঙ্গলবার দুপুরে নাটোরের সিংড়া উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল কলম ইউনিয়ন পরিষদ হলরুমে উপজেলা প্রশাসন ও মৎস্য অধিদপ্তরের আয়োজনে “মৎস্য সংরক্ষণ আইন বাস্তবায়ন বিষয়ক” এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সিংড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ভারপ্রাপ্ত জাহেদুল ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাড. আবুল কালাম আজাদ, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা রেজাউল ইসলাম, সিংড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন মন্ডল, উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আঞ্জুমান আরা, মৎস্যজীবি নেতা এমএম আবুল কালাম, চলনবিল জীববৈচিত্র্য রক্ষা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক সাইফুল ইসলাম, নবীর উদ্দিন, বাবলু মিয়া প্রমূখ। 

Post A Comment: