ইতিহাসের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ বিমানযাত্রা!
ইতিহাসের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ বিমানযাত্রা!


সৌরশক্তির জগতে নতুন মাত্রা যোগ করা বৈপ্লবিক বিমান সোলার ইমপালস ২ বিমানটি আজ সোমবার দ্বিতীয়বারের মতো মাটি ছেড়ে উড়াল দিয়েছে প্রশান্ত মহাসাগর পাড়ি দেয়ার উদ্দেশ্যে। তবে প্রায় ১২০ ঘণ্টার দীর্ঘ যাত্রায় একবারও বিমানটি থামবে না বলে এযাবতকালের বিমান ইতিহাসে এটাকেই সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ বিমানযাত্রা হিসেবে মনে করা হচ্ছে।


বার্তা সংস্থা এএফপি’র খবরে বলা হয়, কেবলমাত্র সূর্যের আলো থেকে পাওয়া শক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে বিশ্ব প্রদক্ষিণে বিজ্ঞানীদের বহুদিনের আশা সত্যি করে বিমানের ইতিহাসে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে উচ্চাভিলাষী এই যাত্রা অবশেষে সম্ভব হলো। তবে একে পুরোপুরি সম্ভব তখনই বলা যাবে, যখন বিমানটি নির্ধারিত গন্তব্যে পৌঁছাতে পারবে।

মধ্য জাপানের নাগোয়ার মাটি ছেড়ে স্থানীয় সময় রাত ৩টার দিকে বিমানটি নিয়ে গন্তব্যস্থল হাওয়াই দ্বীপের উদ্দেশ্যে উড়াল দেন সুইস বিমানচালক আঁদ্রে বোর্শবার্গ (৬২)। হাওয়াইয়ের উদ্দেশ্যেই আরো পাঁচদিন আগে বিমানটির ওড়ার কথা থাকলেও আবহাওয়ার সমস্যার কারণে তা সম্ভব হয়নি।

সংশ্লিষ্ট বিষয়ক মুখপাত্র এল্কে নিউম্যান জানান, এখন বিমানটির নিরাপদে গন্তব্যে পৌঁছানোর জন্যই অপেক্ষা চলছে। এখন পর্যন্ত আবহাওয়া ভালো থাকলেও যেকোনো সময় পরিস্থিতি উলটো হয়ে যেতে পারে।

বিমানটি পাড়ি দেবে প্রায় সাত হাজার নয়শ’ কিলোমিটার এবং পাঁচদিন-পাঁচরাত টানা ভ্রমণ করবে বলে আশা করা হচ্ছে। এই দীর্ঘ পথে বিমানটি একবারও থামবে না বলেই এই বিমানযাত্রাকে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে আখ্যায়িত করা হচ্ছে।

Post A Comment: