কোমর ভেঙে ৯২ বছরের বৃদ্ধার শরীরে খোঁজ মিলল মৃত ভ্রূণের!
কোমর ভেঙে ৯২ বছরের বৃদ্ধার শরীরে খোঁজ মিলল মৃত ভ্রূণের!



দাদিকে নিয়ে তড়িঘড়ি হাসপাতালে ছুটেছিলেন নাতি-নাতনিরা। ৯২ বছরের দাদি পড়ে গিয়ে কোমরে গুরুতর চোট পেয়েছেন। এক্স-রে বিভাগের বাইরে দাঁড়িয়েছিলেন নাতিরা। রিপোর্ট হাতে নিয়ে ডাক্তার যা বললেন, তাতে চমকে উঠলেন সবাই।

ডাক্তার জানান, দাদির কোমরের চোট তেমন গুরুতর কিছু নয়। কিন্তু তাঁর শরীরে রয়েছে একটি মৃত ভ্রূণ। ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে প্রায় দুই কিলোগ্রাম ওজনের ভ্রূণটি বহন করছেন তিনি। তাঁর গর্ভে সাত মাস বেড়ে ওঠার পর ভ্রূণটির মৃত্যু হয়েছিল। এরপর সেটি জরায়ুর বাইরে চুনের মতো জমে যায়। সাধারণত এই ধরনের ঘটনায় তীব্র যন্ত্রণা হয়। কিন্তু ওই বৃদ্ধার কখনও ব্যথা অনুভূত হয়নি। এই কারণেই ভ্রূণের অস্তিত্বও টের পাননি।
চিলির এই অশীতিপর বৃদ্ধার হিপ এক্স-রে রিপোর্ট শুক্রবার প্রকাশ হওয়ার পর বিশেষজ্ঞ চিকিত্সকরা জানিয়েছেন, মেডিক্যাল জগতের ইতিহাসে এই ঘটনা বিরল। ডাক্তারি পরিভাষায় একে লিথোপেডিয়ন বলা হয়। দীর্ঘ সময় কোনও শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা না করানোর জন্যই এতদিন ভ্রূণটির খোঁজ মেলেনি বলে তাঁদের দাবি। এদিকে ওই মমি ভ্রূণকে সঙ্গী করেই সন্তান ও নাতি-নাতনিদের সঙ্গে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরে এসেছেন বৃদ্ধা। ও-তো কোনও কষ্ট দিচ্ছে না, তাই অপারেশন করে বাদ দেওয়া হয়নি বলে বৃদ্ধার পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে।

Post A Comment: