যেখানে কাঁদলেই পুরস্কার!
যেখানে কাঁদলেই পুরস্কার!

তারা রামগরুড়়ের ছানা নয়।  আদতে মানব সন্তান।  মানব শিশু নিয়ে এক অন্যরকম খেলা।  কিছুটা সময়ের জন্য তাদের ‘হাসতে মানা’।  জাপানের ঐতিহ্যবাহী ‘অ্যানুয়াল ক্রাইং কনটেস্ট’-এর মঞ্চে হাজির হয় প্রায় শ’খানেক জাপানি শিশু।


হাজির ১২০ জন সুমো পালোয়ানও।  শিশুদের পাশাপাশি প্রতিযোগী  সুমোরাও।  একটি গোল বড় রিংয়ের মধ্যে খেলার আয়োজন করা হয়।  দু’জন প্রতিযোগী দু’টি শিশুকে নিয়ে রিংয়ের মধ্যে এসে তাদের কাঁদাবেন।  এটাই খেলা।  এটাই ঐতিহ্য।  এটাই প্রতিযোগিতা।যে সুমো শিশুকে যত তাড়াতাড়ি এবং যত জোরে কাঁদাতে পারবেন পুরস্কারের বিচারে তিনিই এগিয়ে যাবেন।  শিশুদের কাঁদাবার জন্য কখনো রঙিন, কখনোবা ভয়ঙ্কর মুখোশও ব্যবহার করেন তারা।

জাপানিরা মনে করেন, শিশুর শরীরের জন্য এই কান্না উপকারী।  জাপানের ৪০০ বছরের প্রাচীন এ খেলার আয়োজন হয় দেশজুড়ে।সম্প্রতি টোকিও'র আসাকুসা জেলায় সেনসোজি মন্দিরে এর আসর বসেছিল। যেখানে পুরস্কার পেতে গেলে ফেলতে হবে চোখের জল।

Post A Comment: