বাংলাদেশের বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন ভারত ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে গেছেন। ভারতে উগ্রপন্থীরা হত্যার হুমকি দেওয়ায় তিনি যুক্তরাষ্ট্রে গেছেন, টুইটার বার্তায় এ কথা জানিয়েছেন দীর্ঘদিন ধরে ভারতে আশ্রয় নিয়ে থাকা এই লেখিকা। খবর হিন্দুস্তান টাইমস ও দ্য হিন্দুর।
গতকাল বুধবার টুইটারে তসলিমা জানান, ‘যেসব ইসলামপন্থী জঙ্গি বাংলাদেশে ব্লগারদের হত্যা করেছে, তারাই আমাকে হুমকি দিয়েছে। ভারতের সরকারি স্তরে সাক্ষাৎ চেয়েছিলাম। পাইনি। চলে যাচ্ছি। যখন নিরাপদ বোধ করব, তখনই দেশে ফিরব।’ তিনি বলেন, হত্যার হুমকি পেয়ে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাক্ষাৎ চেয়েছিলেন। তবে সাড়া পাননি।
টুইটারে তসলিমা লেখেন, ‘আমি পরিবারের সদস্যদের দেখতে বা বিভিন্ন জায়গায় বক্তৃতা দিতে মাঝেমধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রে যাই। আমি একেবারে ভারত ছাড়িনি। ভারত সরকার সব সময়ই আমাকে নিরাপত্তা দিয়েছে।’
যুক্তরাষ্ট্রে যেতে তসলিমাকে সহায়তা দিয়েছে নিউইয়র্কভিত্তিক সংগঠন সেন্টার ফর ইনকোয়ারি। সংগঠনটির প্রধান রোনাল্ড এ লিন্ডসে বলেন, ‘জীবনের ওপর সত্যিকার অর্থে বড় হুমকি আসাতেই তসলিমা ভারত ছেড়ে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। জীবন বাঁচাতেই তাঁকে যুক্তরাষ্ট্রে থাকতে হবে। সেখানে তাঁর কোনো চাকরি বা থাকার জায়গায়ও নেই।’
মুসলিম মৌলবাদীদের হুমকির মুখে তসলিমা ১৯৯৪ সালে বাংলাদেশ ত্যাগ করতে বাধ্য হন। দেশ ছাড়ার পর তিনি প্রায় এক দশক ইউরোপ এবং আমেরিকায় থাকেন। এখন তসলিমা সুইডেনের নাগরিক। ২০০৪ সাল থেকে তিনি ভিসার মেয়াদ বাড়িয়ে ভারতে আছেন। লেখার কারণে মুসলিমদের একটি অংশের তীব্র বিক্ষোভে

Post A Comment: