মানুষের মাংসের আইটেম রেস্তোরাঁয়!!!
 মানুষের মাংসের আইটেম রেস্তোরাঁয়!!! 

মানুষের মাংস রান্না এবং খদ্দেরদের সেই মাংস খাওয়ানোয় বন্ধ করে দেয়া হয়েছে নাইজেরিয়ার একটি রেস্তোরাঁ। ডেইলি মেইল জানিয়েছে, ওই রেস্তোরাঁর রান্নাঘরে ভয়াবহ কিছু ঘটছে- এমন আশঙ্কায় স্থানীয় বাসিন্দারা থানায় অভিযোগ করলে রেস্তোরাঁটিতে তল্লাশি চালায় পুলিশ। তল্লাশি চালানোর সময় রেস্তোরাঁর রান্নাঘরে মানুষের কাটা তাজা মাথা আবিষ্কার করে পুলিশ। 

পুলিশের তল্লাশির সময়েও প্লাস্টিকের ব্যাগে ঢুকিয়ে রাখা মাথাগুলো থেকে তাজা রক্ত বেয়ে পড়ছিল। ঘটনাটি নাইজেরিয়ার দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় আনাম্ব্রা প্রদেশে ঘটেছে। রেস্তোরাঁটিতে সম্প্রতি সন্ন্যাসী গোছের এক স্থানীয় ব্যক্তি খেতে গেলে খাওয়া শেষে দাম দেখে চমকে যান তিনি। তৃতীয় বিশ্বের দেশ নাইজেরিয়ায় প্রায় এক কোটি মানুষের দৈনিক মোট মজুরি যেখানে সর্বোচ্চ ৬০ পাউন্ড, সেখানে রেস্তোরাঁটিতে ওই এক ব্যক্তির খাবারের দাম হিসেবে নাইজেরীয় মুদ্রায় ৭০০ নাইরা ধার্য করা হয়েছিল- যা ২.২৪ পাউন্ডের সমপরিমাণ! ফলে স্বভাবতই কয়েক টুকরো মাংসের এই দাম দেখে আকাশ থেকে পড়েন ওই ব্যক্তি। 
এরপরই ওই মাংসের উৎস সম্পর্কে জানার চেষ্টা করেন তিনি- যে কোথা থেকে ওই মাংস কিনে আনছেন রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষ। বিবিসি-কে তিনি বলেন, ‘যে ব্যক্তি আমাকে খাবার পরিবেশন করছিল, সে খাবারের দামে আমার প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করেছিল। সে আমাকে জানায় যে আমি যেই মাংসগুলো খেয়েছি, সেগুলো আকারে ছোট ছিল বলে দাম বেশি মনে হচ্ছে আমার। আমার কোনো ধারণাই ছিল না যে আমি মানুষের মাংস খাচ্ছি, আর মানুষের মাংস এতটা দামী!’ স্থানীয় এক বাসিন্দা ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘ঘটনাটি বিস্ময়কর হলেও আমি মোটেই অবাক হইনি... যখনই আমি বাজারে যেতাম, রেস্তোরাঁটির মধ্যে অস্বাভাবিক ঘটনার আঁচ পেতাম।
 রেস্তোরাঁর লোকগুলো কখনোই পরিষ্কার কাপড় পড়তো না এবং সেখানে প্রবেশের সময় বা সেখান থেকে বের হওয়ার সময় যখনই তাদের দেখা যেতো- তাদের দৃষ্টি অদ্ভুত দেখাতো। তাই আমার আগেই সন্দেহ হয়েছিল।’ রেস্তোরাঁটিতে তল্লাশি চালিয়ে পুলিশ সেখানে একটি ভয়াবহ অস্ত্রাগারেরও সন্ধান পেয়েছে। অস্ত্রাগারে বিভিন্ন অস্ত্রের মধ্যে গ্রেনেড বোমাও ছিল। এই ঘটনায় সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে ১০ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

Post A Comment: