ধড় আর মাথা আলাদা হয়ে গিয়েছিল। সেটাও জোড়া লাগানো হল। আর এই অসাধ্য সাধনটি করলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত চিকিৎসক অনন্ত কামাত। প্রায় সম্পূর্ণ সুস্থ করেই বাড়ি পাঠিয়ে দিলেন আহত ব্যক্তিকে।
গত বছর ৯ সেপ্টেম্বর নিউক্যাসেলের বাসিন্দা টোনি কাওয়ানের গাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সজোরে ধাক্কা মারে একটি টেলিফোন পোলে। উদ্ধার করে ত‌াঁকে যখন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়, তখন টোনির হৃদযন্ত্র কাজ করা বন্ধ করে দিয়েছে। তীব্র আঘাতে ঘাড়ের হাড় এবং মেরুদণ্ড ভেঙে গিয়েছিল তাঁর। মস্তিষ্ক মেরুদণ্ড থেকে আলগা হয়ে খুলে এলেও তা কাজ করা বন্ধ করেনি। কারণ পেশী এবং কলার সাহায্যে সেটি কোনোমতে আটকে ছিল। টোনির সুস্থ হওয়া প্রায় অসম্ভব বলেই জানিয়ে দিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। তবে অস্ত্রোপচারের পর সেই টোনিকেই নতুন জীবন দিলেন কামাত। আর কয়েকদিনের মধ্যেই বাড়ি ফিরতে পারবেন তিনি বলে আশা চিকিৎসকদের।

Post A Comment: