গাজায় গত বছর ইসরায়েলি হামলা চলাকালে ইসলামপন্থী গোষ্ঠী হামাস ফিলিস্তিনিদের হত্যা করেছে বলে দাবি করেছে লন্ডনভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনা। হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ তুলে গতকাল বুধবার সংস্থাটি জানায়, গত বছর যুদ্ধের সময় ইসরায়েলকে সহায়তার অভিযোগে অন্তত ২৩ জনকে হত্যা করেছে হামাস। বিনা বিচারে এসব হত্যাকাণ্ডের কোনো তদন্ত হয়নি। কাউকে অভিযুক্তও করা হয়নি।

'স্ট্র্যাগলিং নেক' শীর্ষক এ প্রতিবেদনে বলা হয়, 'ইসরায়েল যখন গাজায় ধ্বংস ও হত্যাকাণ্ড চালাচ্ছিল, হামাস তখন এর সুযোগ নেয়। নৃশংসভাবে হত্যাকাণ্ড চালায় তারা।' অ্যামনেস্টির ফিলিপ লুথের বলেন, 'নৈরাজ্যের সুযোগে হামাস তার নিরাপত্তা বাহিনীকে স্বাধীনভাবে নৃশংসতা চালানোর অনুমতি দেয়। বন্দিদের ওপরও নির্যাতন চালানো হয়। শিরদাঁড়াকে হিম করে দেওয়া অত্যাচার চালানো হয়। এর মধ্যে যুদ্ধাপরাধও রয়েছে। মূলত প্রতিশোধ নেওয়া ও গাজা ভূখণ্ডে ভীতি ছড়াতেই এসব করে তারা।'

তবে হামাসের এক মুখপাত্র ফাওয়াজ বারহাম এই প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেছেন। বারহাম বলেন, 'এই প্রতিবেদনে পেশাদারিত্ব ও বিশ্বাসযোগ্যতার ঘাটতি রয়েছে। ইচ্ছাকৃতভাবে অতিরঞ্জিত এ প্রতিবেদনে সব পক্ষের তথ্য নেওয়া হয়নি, তথ্য যাচাইও করা হয়নি।'

গত বছর গাজায় ৫০ দিনের ইসরায়েলি হামলায় দুই হাজার ২০০ জন নিহত হয়। ইসরায়েলের মারা পড়ে ৭৩ জন। হামাসের ইসরায়েলের দিকে রকেট ছোড়া বন্ধ করতে এই হামলা চালায় ইহুদি রাষ্ট্রটির সেনাবাহিনী। গত মার্চে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে অ্যামনেস্টি জানায়, হামাসের ছোড়া এসব রকেটে ইসরায়েলিদের চেয়ে বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। তাদের নতুন প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, 'হামাস ওই সময় তার প্রতিদ্বন্দ্বী গোষ্ঠী ফাতাহর সদস্য ও সমর্থকদের অপহরণ, নির্যাতন ও হামলা চালায়।'

গাজায় ইসরায়েলের বিমান হামলা : গাজা ভূখণ্ডে গতকাল ভোরে আবারও হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। এর কয়েক ঘণ্টা আগে গাজা থেকে একটি রকেট ইসরায়েল ভূখণ্ডে গিয়ে পড়ে। সূত্র

Post A Comment: