নৌকাবোঝাই করে অভিবাসন-প্রত্যাশীরা প্রতিদিনই জড়ো হচ্ছে ইন্দোনেশিয়া ও মালয়েশিয়ার সাগর উপকূলে। তাদের অনেকের আশ্রয় মিলছে সেখানে। অসহায়ভাবে দিন কাটছে যন্ত্রণা আর অনিশ্চিত পরিণতির আশঙ্কায়। অনেক হতভাগ্যকে নিঃসম্বল অবস্থায় ফেরত পাঠানো হচ্ছে।

ছবি: রয়টার্স
দিনের পর দিন সাগরে ভেসে বেড়িয়েছে শিশুটি। ইন্দোনেশিয়ার আচেহ প্রদেশের লাঙ্গসার একটি আশ্রয়শিবিরে গতকাল সোমবার আনা হয় অসহায় শিশুটিকে। পরিবারের সঙ্গে কথা হবে এই আশায় বুক বাঁধে সে। কিন্তু তা সম্ভব হয়নি। অনিশ্চিত ভবিষ্যতের শঙ্কায় কাঁদছে সে।
ছবি: এএফপি
সাগর থেকে ইন্দোনেশিয়ার জেলেরা উদ্ধার করেছে এই মা ও শিশুকে। অসুস্থ শিশুকে নিয়ে অভিবাসন-প্রত্যাশী এই রোহিঙ্গা মা লাঙ্গসা আশ্রয়কেন্দ্রে ঠাঁই নিয়েছেন। সেখানে চলছে টিকে থাকার চেষ্টা।
 ছবি: এএফপি
লাঙ্গসা আশ্রয়কেন্দ্রে মিয়ানমার ও বাংলাদেশের শত শত অভিবাসন-প্রত্যাশী আশ্রয় নিয়েছে। সেখানে একটি আশ্রয়কেন্দ্রে বাংলাদেশের এক অভিবাসন-প্রত্যাশীকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
ছবি: রয়টার্স
আশ্রয়কেন্দ্রে গাদাগাদি করে ঘুমাচ্ছেন বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গা অভিবাসন-প্রত্যাশীরা। নৌকাবোঝাই করে প্রতিদিনই ইন্দোনেশিয়া ও মালয়েশিয়ায় সাগর উপকূলে অভিবাসন-প্রত্যাশীদের উদ্ধার করা হচ্ছে।
ছবি: রয়টার্সছবি: রয়টার্স
এত কষ্টের মধ্যেও থেমে নেই শিশুদের দুরন্তপনা। জাতি, ধর্ম, বর্ণের ভেদাভেদ বোঝে না শিশুরা। আশ্রয়কেন্দ্রে তাই একে অন্যের বন্ধু হয়ে গেছে। মেতে উঠেছে খেলায়।

Post A Comment: