পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশকে পরিষ্কার ফেবারিট বললেও ভারতের বিপক্ষে সেটা বলেননি। নানা দিক বিশ্লেষণ করে আসন্ন সিরিজে ভারতকেই এগিয়ে রেখেছেন সাকিব আল হাসান। নতুন যুগের নতুন প্রতিনিধি সৌম্য সরকার অবশ্য তা মনে করেন না। সাম্প্রতিক সময়ে নিজেদের পারফরম্যান্সের পরিপ্রেক্ষিতে এ সিরিজে বাংলাদেশকেই এগিয়ে রাখছেন এ ২২ বছর বয়সী।

১০ ওয়ানডে খেলা সৌম্য শুরু থেকেই আলো ছড়াচ্ছেন। প্রায় ৪০ গড়ে রান করেছেন ৩৫৯। সেঞ্চুরি পেয়েছেন পাকিস্তানের বিপক্ষে সর্বশেষ ওয়ানডেতে। টেস্ট ক্যারিয়ার এখনো উজ্জ্বল না হলেও সর্বশেষ বিসিএলের শেষ পর্বে সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে সৌম্যের আত্মবিশ্বাস বেশ টনটনেই। শুধু নিজের নয়, সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ দলের পারফরম্যান্সটা দারুণ বলেই সৌম্য মনে করেন ভারতের বিপক্ষে ফেবারিট বাংলাদেশই, ‘আমার কাছে মনে হয় আমরাই ফেবারিট। কারণ, যেভাবে খেলছি, পারফরম্যান্স যেভাবে ভালো হচ্ছে, সেটা যদি ধরে রাখতে পারি, অবশ্যই ভালো কিছু হবে।’ পাকিস্তান সিরিজের ছন্দ ধরে রাখার প্রত্যয় সৌম্যর কণ্ঠে, ‘পাকিস্তান সিরিজে সবাই ভালো খেলছি। যেটা যদি ধরে রাখতে পারি, আশা করি ভালো কিছু হবে ভারত সিরিজেও। সবাই ভালো খেললেই ফলটা ভালো হবে।’
বর্তমান সময়ে পাকিস্তানের চেয়ে ভারতের পারফরম্যান্স যথেষ্ট ভালো। তবে ওসব পরিসংখ্যানে নজর নয়; সৌম্যের নজর মাঠেই, ‘ফর্মে তো সবাই থাকে। কিন্তু খেলা হবে মাঠে। ওখানে যারা ভালো খেলবে, ফল তাদের পক্ষেই যাবে।’
দলে তাঁর জায়গা মূলত ব্যাটসম্যান হিসেবেই। ব্যাক-আপ পেসার হিসেবেও দেখা গেছে কখনো-এখনো। বিশেষ করে পাকিস্তানের বিপক্ষে ঢাকা টেস্টে রীতিমত অধিনায়কের ভরসা হয়েই বোলিং করেছেন, উইকেট পেয়েছেন। এ কারণে ব্যাটের পাশাপাশি বোলিংও গুরুত্ব দিতে চান, ‘যখনই সুযোগ পাই, বোলিং করার চেষ্টা করি। যেমন শেষ ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে বোলিং করার সুযোগ পেয়েছি। যতটুকু পেরেছি, নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করছি। যেটুকু সময় পাই বোলিং অনুশীলন করি।’
ওয়ানডেতে এরই মধ্যে চিনিয়েছেন নিজেকে। তবে দুই টেস্টে ঠিক জ্বলে উঠতে পারেননি। জানালেন সাদা পোশাকে নিজেকে ভালোভাবেই তৈরি করছেন, ‘প্রস্তুতি এরই মধ্যে শুরু করেছি। প্রথম টেস্টে দুই ইনিংসেই সেট হয়ে আউট হয়ে গেছি। দ্বিতীয় টেস্টে ভালো করতে পারিনি। সেটও হতে পারিনি। অনুশীলনে চেষ্টা করছি টেস্টের জন্য মানসিকভাবে তৈরি হতে। কোন বল ছাড়তে হবে, কীভাবে টিকে থাকতে হবে, তা নিয়ে কাজ শুরু করেছি।’

Post A Comment: