কোরবানের ঈদ মানেই নানা রকমের মাংসের রেসিপি। গরুর সাথে খাসির মাংস তো থাকবেই। তাই এবার খাসির মাংসের ভিন্ন স্বাদের কিছু করার চেষ্টা করুন। তাছাড়া খাসির মাংসের প্রতি বাঙালির একটা বিশেষ দুর্বলতা রয়েছে। মটনের যে রেসিপি আজ দেওয়া হল, সেটি একেবারেই ভিন্ন স্বাদের। এই রেসিপিটি যেকোনো ভোজনরসিকদেরই ভালো লাগবে। আর সম্পুর্ণ রান্নাটা করতে হয় ডিমি আঁচে। চলুন তাহলে শিখে নেওয়া যাক সুস্বাদু মটন মস্তানি বানানোর সহজ কৌশল।


মটন মস্তানি উপকরণ :

খাসির মাংস- ১কিলোগ্রাম,

টক দই- ২০০ গ্রাম,

আদা বাটা- ৩ চামচ,

মিষ্টি দই-১০০ গ্রাম,

রসুন বাটা- ৩ চামচ,

জিরা গুঁড়ো- ৪ চামচ,

পেঁয়াজ- পাতলা করে কুচনো ছোট ২ কাপ,

কাজু বাটা- ৪ চামচ,

বড় এলাচ- ৫-৬টি,

গোলমরিচ- ৮-১০টি,

লবঙ্গ- ৫-৬টি,

দারচিনি- মাঝারি মাপের ১টি,

তেজপাতা-২টি,

জায়ফল- আধা চামচ,

সামান্য জয়িত্রী,

মৌরি- ১ চামচ,

কাঁচা মরিচ- আন্দাজ মতো,

লবণ- স্বাদ মতো,

সরিষার তেল- পরিমাণ মতো,

ঘি- ২-৩ চামচ।

প্রণালি:

প্রেসার কুকারে খাসির মাংস, টক দই, আদা বাটা, রসুন বাটা, কাজু বাটা, জিরা গুঁড়ো, লবণ, ২ চামচ তেল দিয়ে ভালো করে মেখে ডিমি আঁচে সেদ্ধ করে নিন। যেন মাংস হার ভালো মতো সেদ্ধ হয়। তবে খেয়াল রাখবেন মাংস যেন বেশি সেদ্ধ হয়ে গলে বা হার থেকে খুলে না যায়।

এবার কড়াইয়ে তেল ও ঘি গরম করে সব রকম গরম মশলা মিশিয়ে দিয়ে পেঁয়াজ কুচি ও কাঁচা মরিচ দিয়ে ভালো করে ভেজে নিন। এবার তার থেকে অর্ধেক পরিমাণ ভাজা মশলা তুলে রাখুন।

এর পর সেদ্ধ খাসির মাংস স্টক সমেত কড়াইয়ে ঢেলে দিন। ফুটতে শুরু করলে মিষ্টি দই দিয়ে ঢেকে দিয়ে ডিমি আঁচে ১৫ মিনিট রান্না করুন।

রান্না প্রায় হয়ে এলে উপর থেকে ধনেপাতা পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচ ভাজা ছড়িয়ে দিয়ে আঁচ থেকে নামিয়ে নিন।

ঈদের রাতে অতিথি আপ্যায়ন ও নিজেরা পরিবেশন করুন সুস্বাদু মটন মস্তানি। পোলাও বা পরোটার সঙ্গে মটন মস্তানি খেতে বেশি ভালো লাগবে।
 

ক্যারিয়ারের খুব ভাল জায়গায় ছিলেন। সেখান থেকে ‘ব্রেক’ নিয়ে সাত পাকে বাঁধা পড়েছেন এই বলিউড অভিনেত্রীরা। এদের প্রত্যেকেরই জীবন সঙ্গী প্রবাসী ভারতীয় (এনআরআই)। যেমন- সুপারমডেল-অভিনেত্রী পূজা বাত্রা। তিনি তারকা। তবে তার স্বামীকে অনেকেই চেনেন না।



শিল্পা শেঠি: ‘বাজিগর’ দিয়ে ক্যারিয়ারের শুরু। ২০০৭ সালে জেতেন ব্রিটিশ সেলেব্রিটি রিয়েলিটি শো। ২০০৯ সালে শিল্পপতি রাজ কুন্দ্রাকে বিয়ে করেন শিল্পা। রাজ ব্রিটেনের একজন এনআরআই ব্যবসায়ী। রয়েছে এক ছেলে।

পূজা বাত্রা: ১৯৯৭ সালে পূজার ‘ভিরাসত’ ছবিটি অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়েছিল। ২০০২ সালে ক্যালিফোর্নিয়ার অর্থোপেডিক সার্জন সোনি আলুওয়ালিয়াকে বিয়ে করেন সুপারমডেল-নায়িকা পূজা। ২০১১ সালে যদিও বিচ্ছেদ হয়ে গেছে তাদের।


জুহি চাওলা: বলিউডের অন্যতম অভিনেত্রীদের একজন জুহি। তিনি বিয়ে করেছেন ব্রিটেনের প্রবাসী ব্যবসায়ী জয় মেহতাকে। বহু বছর পর ছবিতে কামব্যাক করেছেন জুহি। রয়েছে এক ছেলে, এক মেয়ে।


মাধুরী দীক্ষিত: আমেরিকার প্রবাসী চিকিৎসক শ্রীরাম নেনের সঙ্গে ১৯৯৯ সালে বিয়ে হয় ‘ধক ধক’ গার্লের। ক্যারিয়ারের শীর্ষে ছিলেন তখন। বহু বছর পর ‘আজা নাচলে’ ছবিতে কামব্যাক করেন মাধুরী। দুই ছেলে রয়েছে তার।


মীনাক্ষী শেষাদ্রী: মাত্র ১৭ বছর বয়সে মিস ইন্ডিয়া খেতাব পেয়েছিলেন। নায়িকা হিসাবেও ছিলেন অত্যন্ত জনপ্রিয়। ১৯৯৫ সালে তিনি বিয়ে করেন হরিশ মাইসোর নামে ব্রিটেনের এক প্রবাসী ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংকারকে। রয়েছে দুই সন্তান।বর্তমানে নাচের শিক্ষিকা মীনাক্ষী।


মুমতাজ: অনেকেরই মন ভেঙে গিয়েছিল, যখন মুমতাজ বিয়ের কথা ঘোষণা করেন। মার্কিন মুলুকে প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী ময়ূর মাধওয়ানির সঙ্গে ১৯৭৪ সালে বিয়ে হয় ‘ঝিল কে উস পর’ নায়িকার। তার দুই মেয়েও রয়েছে। নায়িকা হিসাবে আর কামব্যাক করেননি মুমতাজ।
 

সম্প্রতি সাকিব আল হাসানকে নিয়ে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। যে ভিডিওতে একজন ফ্যান এবং টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি ফর‌ম্যাটে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে তর্ক বিতর্ক করতে দেখা যাচ্ছে। অনেকেই এই ভিডিও দেখে সাকিব আল হাসানের সমালোচনা করেছেন। সাকিব আল হাসান এ সম্পর্কে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়ে বিষয়টি সম্পর্কে ব্যাখ্যা দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এই ক্লিপটি সম্পূর্ণ ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে।


ফেসবুকে সাকিব আল হাসান লিখেছেন, ‘আমার প্রিয় ভক্ত এবং অনুসারীদের উদ্দেশ্য করে কিছু কথা বলতে চাই। সম্প্রতি আমাকে নিয়ে একটি ভিডিও আপলোড করা হয়েছে। যেখানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের পর লবিতে আমাকে এবং আমার একজন তথাকথিত ‘ফ্যান’ এর সাথে তর্ক বিতর্ক করতে দেখা যায়। এই ক্লিপটি সম্পূর্ণ ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে যা প্রকৃত ঘটনা প্রকাশ করে না।’

তিনি আরো লিখেছেন, ‘পরপর ম্যাচ থাকায় আমি এবং আমার সহকর্মীরা বেশ ক্লান্ত ছিলাম এবং আমরা আমাদের রুমে ফিরে যাচ্ছিলাম। আমরা আমাদের নিজস্ব সরঞ্জাম ও ব্যাগ বহন করছিলাম। তাই আমাদের হাত পূর্ণ ছিল যা কোনোভাবেই অটোগ্রাফ দেয়ার অবস্থায় ছিল না। আমরা সর্বদাই আমাদের ভক্তদের সঙ্গে সময় কাটাতে পছন্দ করি এবং তাদের সাথে ছবি তুলে, অটোগ্রাফ দিয়ে মুহূর্তগুলো ভাগ করে নেয়ার চেষ্টা করি। কিন্তু ভক্তদেরও বুঝতে হবে যে আমরাও মানুষ। আমরা মাঠে একটা বিজয় অর্জনের জন্য প্রাণপণে লড়াই করি। আমাদের কি ব্যস্ত কিংবা ক্লান্ত অনুভব করার অনুমতি নেই? আমরা আপনাদের সমর্থন বুঝি এবং প্রশংসা করি সবসময়। চেষ্টা করি আপনাদের সমর্থনের প্রতিদান যেন আমরা মাঠে ভালো খেলার মাধ্যমে দিতে পারি। কিন্তু মাঝে মাঝে আমাদের এই কঠিন পরিশ্রম এবং কঠোর চেষ্টার সাথে সবসময় নিজেকে গুছিয়ে রাখা কষ্টকর হয়ে পড়ে।’

টাইগার অলরাউন্ডার লিখেছেন, ‘আমার আপনাদের কাছে বিনীত অনুরোধ থাকবে যে, আমাদের মধ্যে কেউ যদি আপনাদের অনুরোধ না রাখতে পারি তবে তা ব্যক্তিগতভাবে নিবেন না। কারণ আমরা যে পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছি তা হয়তো আপনি যা দেখছেন তা থেকে ভিন্ন হতে পারে। হুটহাট আমাদের পরিস্থিতি বিবেচনা না করে কিংবা আমরা কেমন মুডে আছি তা বোঝার চেষ্টা ছাড়াই কোনো সিদ্ধান্ত বা মতামত দিতে ব্যস্ত হয়ে পড়বেন না। আমি আমার ভক্তদের অসম্ভব ভালোবাসি। আমি মাঠে তাদের জন্যই খেলি সেটা জাতীয় দলে হোক কিংবা কোনো লিগের জন্যে হোক। একই সাথে আমি আমার ভক্তদের কাছ থেকে সম্মান, ভালোবাসা এবং তারা আমাকে বুঝবে আমি এমনটাই আশা করি। আমি জানি কিছু মানুষ, যারা হয়তো আমাকে ফলো করে অথবা করে না, কিন্তু সর্বদা ছোট ছোট বিষয়ে আমাকে নিচু করতে পছন্দ করে। তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, আমাদের থেকে ভালো কিছু প্রত্যাশা করতে হলে এই নীচু মানসিকতার পরিবর্তন প্রয়োজন। প্রত্যেকটা ম্যাচে আমরা এমনিতেই অনেক বেশি চাপে থাকি। নতুন কোনো চাপ প্রয়োগ না করার জন্য বিশেষ অনুরোধ করা হলো। আর এই মানসিকতার বাইরে যারা আছেন আমি সর্বদা তাদের পাশে আছি। সবার জন্য আমার তরফ থেকে ভালোবাসা রইল।’