স্মার্টফোনে সবচেয়ে বেশি গেম খেলা হয়। তরুণ থেকে শুরু করে মাঝ বয়সীরাও তাদের ফোনে গেম খেলে থাকেন। তবে যারা পেশাদার গেমার তাদের জন্য স্মার্টফোন তেমন কোনো সুবিধা দিতে পারে না। আর পেশাদার গেমারদের কথা মাথায় রেখে গেমিং পণ্য নির্মাতা রেজার গেমিং স্মার্টফোন উন্মুক্ত করার কথা ভাবছে।

রেজারের গেমিং ল্যাপটপ সবার কাছেই জনপ্রিয়। গেমিং যন্ত্রাংশ ও ল্যাপটপ তৈরি করে পরিচিতি পেয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। আর এ বছর স্মার্টফোনের বাজারে নামতে স্মার্টফোন নির্মাতা নেক্সটবিটকে অধিগ্রহণ করেছে প্রতিষ্ঠানটি। এবং যাত্রা শুরু করেই শক্তিশালী গেমিং স্মার্টফোন এনে চমক দিতে চাইছে প্রতিষ্ঠানটি। 

প্রতিষ্ঠানটির এক সূত্রের বরাতে ব্লুমবার্গের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হার্ডকোর গেমারদের জন্য মোবাইল যন্ত্র তৈরি করছে প্রতিষ্ঠানটি। তবে নতুন স্মার্টফোনের বিস্তারিত নিয়ে এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানায়নি প্রতিষ্ঠানটি। 

গেমিং স্মার্টফোন পরিকল্পনায় এ রেজারই প্রথম প্রতিষ্ঠান নয়। এর আগে গেমভিত্তিক মোবাইল ফোন তৈরির মধ্যে রয়েছে নকিয়ার এন-গেজ, সনির এক্সপেরিয়া প্লে। 

সূত্র: দ্য ভার্জ



গত সপ্তাহেই মাশরাফিকে ছেড়ে দেওয়ার খবর নিশ্চিত করে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। এরপর থেকেই জল্পনা-কল্পনার সূচনা। কোথায় যাবেন মাশরাফি বিন মুর্তজা? অবশেষে রংপুর রাইডার্সে যোগ দিলেন বাংলাদেশের এই ওয়ানডে অধিনায়ক।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) পঞ্চম আসরে রংপুর রাইডার্সের জার্সিতে দেখা যাবে মাশরাফিকে। শুক্রবার সন্ধ্যায় মাশরাফির সাথে সব ধরণের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রংপুর রাইডার্সের প্রধান নির্বাহী ইশতিয়াক রশিদ।

বিপিএলের ইতিহাসের সফল অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। টুর্নামেন্টের প্রথম তিন আসরেই চ্যাম্পিয়ন হয়েছে তার দল। প্রথম দুবার ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হয়ে টানা হ্যাটট্রিক জয়ের অবিস্বরণীয় কীর্তি! কিন্তু গতবার চ্যাম্পিয়ন হতে ব্যর্থ হন মাশরাফি। শুধু তাই নয়, ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে দল নির্বাচন নিয়ে মতপার্থক্য ও মনোমালিন্যও সৃষ্টি হয়। এরপর মাশরাফির সঙ্গে ফ্র্যাঞ্চাইজি কর্মকর্তাদের আপস-মীমাংসা হয়েছে ঠিকই কিন্তু রয়ে গেছে মানসিক দূরত্ব। এ কারণেই মাশরাফির দল পাল্টানো বলে মন্তব্য করছেন অনেকেই।

বিপিএলে রংপুর রাইডার্সের লক্ষ্য এবার শিরোপা জয়। নতুন মালিকানায় দলটি ইতোমধ্যেই বেশ কয়েকজন টি-টোয়েন্টির নামী-দামী ক্রিকেটারদের দলে ভিড়িয়েছে। সেই তালিকায় রয়েছেন, ক্রিস গেইল, স্যামুয়েল বদ্রি, রবি বোপারা, থিসার পেরেরার নাম। শুধু তাই নয়, মাশরাফির নতুন দলে যুক্ত হতে পারেন ডেভিড ওয়ার্নার, ক্রিস মরিসের মতো তারকাও।


তাহসান মিথিলার ডিভোর্স ঠেকাতে খোলা হয়েছে ফেসবুক ইভেন্ট। ইভেন্টের মেয়াদকাল সকাল আটটা থেকে রাত ১১টা। তারা সমাবেত হতে চাইছেন শাহবাগে। এ যাবত ২৭ শ এর মতো মানুষকে দেখা গিয়েছে ইভেন্টটির ‘গোয়িং’ অপশনে। এবং ১৮ হাজার মানুষ রয়েছেন ইন্টারেস্টেড। কর্তৃপক্ষ ইভেন্টের নাম দিয়েছেন ‘তাহসান-মিথিলার ডিভোর্স মানি না, মানব না।’ তারা তাদের ইভেন্টের ডিটেইলস বর্ণনা করেছেন এভাবে: ‘তাহসান-মিথিলার ডিভোর্স একটি পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র। এর পেছনে যাদের হাত রয়েছে তাদের পর্দা ফাঁস করতে হবে। এবং সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসি কার্যকর করতে হবে’।


তবে এখানে উল্লেখ্য যে, এই ইভেন্টটির হোস্ট হচ্ছেন "স্যার আনিসুল হক পুটুন দা"। এবং মজা করার জন্যেই এমন একটি ইভেন্ট পেজ খোলা হয়। তবে মানুষ পুরো বিষয়টি বুঝতে না পেরে, সেখানে যাবে বলে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে, সেটাই হলো দেখার মতো ব্যাপার।

একই নামে ইভেন্ট তৈরি করা হয়েছে কিশোরগঞ্জে। অবশ্য তারা এখনও সেভাবে সাড়া ফেলতে পারেননি।


কিশোরগঞ্জে নির্মিত ইভেন্ট পেজের স্ক্রিন শট।